ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
২৯ °সে


এখন দেশ গড়ার কথা বলতে হবে

যুবসংহতির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে আনোয়ার হোসেন মঞ্জু
এখন দেশ গড়ার কথা বলতে হবে
জাতীয় যুব সংহতির ৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে আলোচনা সভা শেষে কেক কাটেন প্রধান অতিথি জাতীয় পার্টি (জেপি) চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু। এসময় দলের সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল ইসলামসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন —ইত্তেফাক

জাতীয় পার্টি-জেপি চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেছেন, আমরা স্বাধীন বাংলাদেশ অর্জন করেছি। এখন দেশ গড়ার কথা বলতে হবে। একসময় মুসলিম লীগ জানতো না-দেশ স্বাধীনের পর কি করবে। তেমনি আমরা অনেকে জানি না বাংলাদেশ হবার পরে এখন কি করতে হবে। আমরা শুধু ৪০ বছর আগের কথাই বলছি। দেশের রাজনীতিতে এটা একটা সমস্যা। দেশকে কীভাবে গড়বো, সেই কথাও বলতে হবে। জেপি’র অঙ্গ সংগঠন জাতীয় যুবসংহতির ৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও সংগঠনের নবগঠিত কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির পরিচিতি উপলক্ষে গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেন, পাকিস্তান আমলে যারা রাজনীতি করতেন তারা নিজেদের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য সম্পর্কে জানতেন। কেন রক্ত দেবেন, জীবন দেবেন কিংবা জেলে যাবেন- সেটি তাদের জানা ছিল। জানতেন দেশকে স্বাধীন করতে হবে। এই সংগ্রামের নেতৃত্বে ছিলেন বঙ্গবন্ধু। এখন বাংলাদেশ হয়েছে, এখনকার লক্ষ্য-উদ্দেশ্য সম্পর্কেও আমাদের জানতে হবে।

দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে জেপি চেয়ারম্যান বলেন, আমরা (জেপি) ১৪ দলেও ছিলাম না, মহাজোটেও ছিলাম না। পরে যুক্ত হয়েছি। এখন আমাদের রাজনীতিটা কি সেটা সম্পর্কে আমাদের জানতে হবে। এরশাদ সাহেবের কাছ থেকে যখন আমরা আলাদা হলাম তখন অনেকেই বিশ্বাস করতে পারেননি যে-আমরা টিকে থাকবো। নিজস্ব স্বত্বাটা চিহ্নিত করতে হবে, দলের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য জানতে হবে। আমরা মাথা উঁচু করে থাকবো ইনশাল্লাহ। দল যেন আমাদের জন্য দায় হয়ে পড়তে না পারে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেপি’র সাধারণ সম্পাদক শেখ শহীদুল ইসলাম বলেন, শুধু উন্নয়নের রূপরেখা দিলেই হবে না। সেটির বাস্তবায়নের জন্য জনসম্পদ গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, আজ রাজনীতি কোথায়? আমরা যারা রাজনীতি করি রাজনীতিটাই আমাদের প্ল্যাটফরম। কিন্তু সেই ঢালটা কি আমরা কেটে ফেলছি? আদর্শবানদের রাজনীতিতে ফিরিয়ে আনতে হবে। তিনি বলেন, এই অবস্থায় হতাশ হলে চলবে না। রাত যত গভীর হচ্ছে সূর্যোদয়ের ক্ষণ তত তরান্বিত হচ্ছে।

জেপি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুর রহিম বলেন, দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে কতটুকু রাজনীতির অবকাশ আছে? সবকিছুতেই একদল। এখানে রাজনীতির বিকাশের সুযোগ কোথায়? প্রেসিডিয়াম সদস্য এজাজ আহমেদ মুক্তা বলেন, জেপি সবসময় গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার পক্ষে ছিল, আছে এবং থাকবে। জেপি’র নির্বাহী সম্পাদক সাদেক সিদ্দিকী বলেন, জেপি আদর্শ-নীতির ভিত্তিতে রাজনীতি করে। এই দলে দুর্নীতিবাজ নেই, সন্ত্রাসী নেই, মাদক কারবারিও নেই। সভায় সভাপতিত্বকারী যুবসংহতির সভাপতি এডভোকেট এনামুল ইসলাম রুবেল সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে আগামীর পথচলায় সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন। যুবসংহতির সাধারণ সম্পাদক মাহফুজ আলমের পরিচালনায় আলোচনা সভায় জেপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান খলিলও বক্তব্য রাখেন। আলোচনা শেষে জেপি চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক যুবসংহতির নেতাদের নিয়ে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটেন।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ মে, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন