ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারি ২০২০, ৮ মাঘ ১৪২৭
২০ °সে

পঞ্চগড়ে স্থাপিত হচ্ছে সর্ববৃহৎ আমের বাগান

পঞ্চগড়ে স্থাপিত হচ্ছে সর্ববৃহৎ আমের বাগান
আমের বাড়ির উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। ছবি: সংগৃহীত

গ্রীনাটিক লিমিটেড নিয়ে আসলো ভিন্ন আঙ্গিকে গ্রাহকদের জন্য আমের বাগান ও বাগান বাড়ির প্রকল্প ‘আমের বাড়ি’। এটি হবে অন্যতম বৃহৎ আমের বাগান।

পঞ্চগড়ে স্থাপিত হচ্ছে এই সুবৃহৎ আমের বাগান। ২৫০ একরের অধিক জমির ওপর ৪টি উন্নত জাতের বছরে তিনবার ফলন দিবে এমন আম চাষের লক্ষে ‘আমের বাড়ি’ শীর্ষক প্রকল্প, যেখানে পুঁজি বিনিয়োগ করে যে কেউ হতে পারবেন বাগানের অংশিদার। এ প্রকল্পের মধ্য দিয়ে যাত্রা শুরু করলো কৃষি ভিত্তিক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান গ্রীনাটিক লিমিটেড। গত ১৫ই জুন ২০১৯ (শনিবার) গুলশানে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে এ প্রকল্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- আর্টিসান আউটফিটার্স লি. এর চেয়ারম্যান আনিতা গোমেজ, গ্রীনাটিক লিমিটেডের চেয়ারম্যান আলী আহমেদ রাসেল, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফেরদৌস, পুলিশ সুপার (হাইওয়ে) মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান, যুগ্ম কমিশনার (কর) মোসাদ্দেক হোসেন, নীলফামারি চেম্বার অব কমার্সের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মারুফুজ্জামান কোয়েল, ড. মোস্তাফিজুর রহমান, জালাল আহমেদসহ আরো অনেকেই।

অনুষ্ঠানে গ্রীনাটিক লিমিটেড প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ কামরুল হাসান বলেন, “এই আমের বাড়ি প্রকল্পটি লক্ষাদিক আম গাছ নিয়ে আমের বাগান হতে যাচ্ছে যা এশিয়ার অন্যতম বৃহৎ আমের বাগান। এখানে উল্লেখ্য যে বর্তমানে এশিয়ার সর্ববৃহৎ আমের বাগানটি ভারতে, যা রিলায়েন্স গ্রুপের পরিচালনাধীন। যেখানে আম গাছের সংখ্যা ১ লক্ষ ৩৫ হাজার। আমাদের ‘আমের বাড়ি’ প্রকল্পটিতে শুধু আমের বাগানই নয় এতে আরো থাকছে অত্যধুনিক ইকো জোন ও রিসোর্ট, নানান প্রজাতির ফুল ও প্রজাপতির উদ্ধান, পক্ষিশালা, ক্যাকটাস গার্ডেন, লগহার্ট, মনোরম লেক এরং আরো অনেক কিছু।” উপস্থিত অতিথিদের বক্তব্যে, এই উদ্ভাবনী প্রকল্পের মাধ্যমে গ্রাহকের জন্য রাসায়নিক সার মুক্ত ফল ও বিনোদনমূলক সুযোগ-সুবিধাগুলোর প্রশংসা করেন। এই প্রকল্পটি পরবর্তী প্রজন্মকে প্রকৃতি ও সবুজের সান্নিধ্য পেতে সহযোগিতা করবে বলেও মন্তব্য করেন তারা।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এস এম ফেরদৌস ‘আমের বাড়ি’ প্রকল্পটির সর্বাঙ্গিক সাফল্য কামনা করে বলেন, “প্র্রকল্পটি গ্রাহকদেরকে ভবিষ্যতে নিরাপদ বিশুদ্ধ ফল ও পরিবার পরিজনদের নিয়ে সবুজালয়ে বিনোদন পেতে সাহায্য করবে।”

গ্রীনাটিক লিমিটেডের কর্তৃপক্ষ জানায়, চলতিবছর ২০১৯ সালের মধ্যে বিশ হাজার আম গাছের চারা রোপনের মাধ্যমে যাত্রা শুরু হচ্ছে । ২০২৩ সালের মধ্যে ১ লক্ষ আম গাছ রোপন সম্পন্ন এবং প্রকল্পটির গ্রাহকদের বিনোদনের জন্য ইকো জোন ও রিসোর্ট উন্মুক্ত করা হবে।

ইত্তেফাক/এমআই

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
icmab
facebook-recent-activity
prayer-time
২১ জানুয়ারি, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন