ঢাকা মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬
২৯ °সে


‘‘নেতৃত্বচর্চার জন্য অংশগ্রহণ এবং সহনশীলতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’’

বিওয়াইএলসির সম্মেলনে বক্তারা
‘‘নেতৃত্বচর্চার জন্য অংশগ্রহণ এবং সহনশীলতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ’’
বাংলাদেশ ইউথ লিডারশীপ সেন্টার (বিওয়াইএলসি) কর্তৃক আয়োজিত হচ্ছে ইউথ লিডারশীপ সামিটের উদ্বোধনী বক্তৃতায় ব্রিটিশ হাই কমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ ইউথ লিডারশীপ সেন্টার (বিওয়াইএলসি) কর্তৃক আয়োজিত হচ্ছে ইউথ লিডারশীপ সামিট। ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ১১ জুলাই এই সামিটের উদ্বোধন অনুষ্ঠিত হয়।

অত্যন্ত প্রতিযোগিতাপূর্ণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ১৮০০ এর বেশি আবেদন হতে ৩৭০ জন শিক্ষার্থী ও তরুণ পেশাজীবীকে সাথে নিয়ে প্রখ্যাত বক্তারা তিনদিনের এই সামিটে তরুণদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন।

এবারের সামিটের প্রথম দিন সাজানো হয়েছে “দৃঢ় একতা এবং ভবিষ্যৎ নীতি নির্ধারণে তরুণদের ভূমিকা” শীর্ষক প্যানেল আলোচনা ও বিভিন্ন পর্যালোচনার সমন্বয়ে। বিভিন্ন জাতিসত্তার ঊর্ধ্বে উঠে অংশগ্রহনমূলক নেতৃত্বচর্চার মাধ্যমে একটি দ্রুত পরিবর্তনশীল পৃথিবীর ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সকলের অংশগ্রহনের নিমিত্তে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমূহ আলোচনায় উঠে আসে। ভবিষ্যৎ নীতিনির্ধারণে তরুণদের অংশগ্রহনের সুযোগ সৃষ্টি এবং এর মাধ্যমে কাঙ্খিত ভবিষ্যৎ অর্জনে অংশগ্রহণকারী প্রতিনিধিবৃন্দ বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করেন।

উদ্বোধনী বক্তৃতায় ব্রিটিশ হাই কমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন বলেন, বর্তমান সময়ে যখন কিনা সমগ্র পৃথিবী বিভিন্ন মতাদর্শগত, ধর্মীয়, এবং সাংস্কৃতিক ভাবে বিভক্ত, সেই সময়ে দৃঢ় একতা এবং ভবিষ্যৎ নীতি নির্ধারণে তরুণদের ভূমিকা বিষয়টি অত্যন্ত সময়োপযোগী। তিনি আর বলেন, এই সামিট তরুণদের দক্ষতা বৃদ্ধি এবং একিসাথে তাদের মধ্যে মূল্যবোধ সঞ্চার করার মাধ্যমে ধৈর্য ও সহনশীলতা সৃষ্টির একটি প্রচেষ্টা যার দুটিই অত্যন্ত কঠিন।

বিওয়াইএলসির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ইজাজ আহমেদ বলেন, বর্তমান বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ৪২ শতাংশেরও বেশি মানুষের বয়স ২৫ বছরের নিচে। বিওয়াইএলসি মনে করে এই বিশাল তরুণ সমাজকে নেতৃত্বচর্চায় সম্পৃক্তকরণ এবং বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা সমাধানের দায়িত্ববোধ প্রতিস্থাপন বেশ কঠিন। তিনি নেতৃত্বচর্চাকে একটি শিক্ষণীয় দক্ষতা উল্লেখ করে বলেন, নেতৃত্ব চর্চা করতে কোন নির্দিষ্ট বয়স, পদ, লিঙ্গ বা সামাজিকভাবে অবস্থাপন্ন হবার প্রয়োজন নেই। নেতৃত্ব চর্চা করতে তরুণদের কেবল সদিচ্ছা এবং যোগ্যতা থাকতে হবে।

একটি সমাজব্যবস্থা কেবল কোনভাবে বেচে থাকা নয় বরং ন্যায়বিচার এবং গ্রহণযোগ্যতার ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠা লাভ করা মনে করিয়ে দিয়ে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন (এমযেএফ) এর নির্বাহী পরিচালক একটি প্যানেল আলোচনায় বলেন আমাদের উচিত তরুণদের দায়িত্ব পালনে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। তিনি আরো বলেন, তরুণদের মধ্যে জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকলকে নিয়ে কাজ করার মূল্যবোধ সঞ্চার করতে হবে এবং ভিন্ন ভিন্ন মতামত গ্রহনের সামর্থ্য সৃষ্টি করতে হবে। সবশেষে তিনি তরুণদের সহনশীলতা এবং অসহিংসতা পক্ষে প্রচারে উৎসাহিত করেন।

আরও পড়ুনঃ ‘এক পুরুষের সঙ্গে জীবন কাটানো কোনও নিয়ম হতে পারে না’

উল্লেখ্য, এই বছর ইউকে এইড এবং মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের পৃষ্ঠপোষকতায় ইউথ লিডারশীপ সামিট আয়োজিত হচ্ছে।

ইত্তেফাক/টিএস

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৬ জুলাই, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন