ঢাকা রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩১ ভাদ্র ১৪২৬
৩০ °সে


ডেঙ্গুর বিস্তার রোধকল্পে স্কাউটদের কাজে লাগাতে হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী

ডেঙ্গুর বিস্তার রোধকল্পে স্কাউটদের কাজে লাগাতে হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী
'পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ' অনুষ্ঠানে এলজিআরডি মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। ছবি: ফোকাস বাংলা

স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, 'ডেঙ্গুর বিস্তার রোধে জনসচেতনতা ও জনসম্পৃক্ততা গড়ে তুলতে স্কাউটদের কাজে লাগাতে হবে।' শনিবার সকালে রাজধানীর কাকরাইলে জাতীয় স্কাউট ভবনের শামস্ হলে 'পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ' বিনির্মাণে ডেঙ্গু সচেতনতাসহ অন্যান্য দুর্যোগকালীন সময়ে উত্তম সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ৯টি সংস্থা, বিভাগ ও মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ বলেন।

তিনি বলেন, 'বসতবাড়ি ও আঙ্গিনা পরিষ্কারের পাশাপাশি ড্রেন, লেক, খাল প্রভৃতিও পরিষ্কার রাখতে হবে এবং বায়ু দূষণ ও নদী দূষণের মত বিষয়গুলোও বিবেচনায় রাখতে হবে। বাংলাদেশ স্কাউটের কার্যক্রম দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত বলেই এ সংস্থার কর্মীরা এ ব্যাপারে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে।'

এই বহুপক্ষীয় সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষরকারী ৯টি সংস্থা, বিভাগ, মন্ত্রণালয় হলো বাংলাদেশ স্কাউটস, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, স্বাস্থ্য সেবা অধিদপ্তর, এটুআই, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এবং ই-কমার্স এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ।

চুক্তি অনুযায়ী পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সংক্রমিত রোগ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ ও বিশ্লেষণের মাধ্যমে প্রযুক্তির সহায়তায় নাগরিক পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে যে যার অবস্থান থেকে দায়িত্ব পালন করবে। বাংলাদেশ স্কাউটস এর সভাপতি ও প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো.আতিকুল ইসলাম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান,বাংলাদেশ স্কাউটস এর প্রধান জাতীয় কমিশনার ড. মো. মোজাম্মেল হক খান।

আরও পড়ুন: বেনাপোলে যাত্রীদের ভিড়, হয়রানির অভিযোগ

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ কামাল, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব ইউসুফ হারুন ও ই-ক্যাব সভাপতি শমী কায়সার।

চুক্তি স্বাক্ষরের পর মন্ত্রী 'স্টপ ডেঙ্গু' নামে একটি বিশেষায়িত অ্যাপের উদ্বোধন করেন। ই-ক্যাব বাংলাদেশের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অ্যাপটি তৈরিতে কারিগরি সহায়তা প্রদান করে ই-পোস্ট ও বিডি ইয়ুথ। 'স্টপ ডেঙ্গু' অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে সারা দেশের মশার প্রজনন স্থানের ম্যাপিং করা হবে। ফলে সংশ্লিষ্ট দপ্তর ও সংস্থা সমূহ যথাযথ কার্যক্রম গ্রহণ করতে পারবে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন