নার্সিং-মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের নিয়োগবিধি আগামী মাসেই কার্যকরের নির্দেশ

প্রকাশ : ০৯ অক্টোবর ২০১৯, ২২:৪৪ | অনলাইন সংস্করণ

  অনলাইন ডেস্ক

নার্সদের বিদ্যমান সমস্যার সমাধানে মতবিনিময় সভা।

নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের নিয়োগবিধি আগামী এক মাসের মধ্যে কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের (স্বাস্থ্যসেবা) সচিব মো. আসাদুল ইসলাম। বুধবার নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের কনফারেন্স কক্ষে নার্সিং সার্ভিসের উন্নয়ন ও নার্সদের বিদ্যমান সমস্যার সমাধানে মতবিনিময় সভায় তিনি এই নির্দেশ দেন।

সচিব আসাদুল ইসলাম বলেন, এখন সরকারি হাসপাতালগুলোতে কর্মরত ৩৭ হাজার নার্সের মধ্যে দুই শতাধিক রয়েছেন নবম গ্রেডে (প্রথম শ্রেণি)। আগামী ছয় মাসের মধ্যে এই সংখ্যা ৭ হাজারে উন্নীত করা হবে। হাসপাতালে নার্স অনুপাতে নার্সিং সুপারভাইজারের পদ নগণ্য। ছয় মাসের মধ্যে এই সংখ্যা আরো ৩ হাজার বাড়ানো হবে বলে জানান সচিব আসাদুল ইসলাম।

প্রাপ্য নার্স কর্মকর্তাদের এক মাসের মধ্যে সিলেকশন গ্রেড দেয়া হবে উল্লেখ করে আসাদুল ইসলাম বলেন, নার্সিং কলেজ ও নার্সিং ইনস্টিটিউটের ইনস্ট্রাক্টর/ প্রভাষক পদ ছয় মাসের মধ্যে সৃষ্টির ব্যবস্থা করা এবং ছয় মাসের মধ্যে ১০ হাজার নতুন নার্স নিয়োগ করা হবে। নার্সদের দেশ-বিদেশে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার কথাও উল্লেখ করেন তিনি।

বুধবার নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের কনফারেন্স কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন, যুগ্ম সচিব ও পরিচালক (প্রশাসন) শিরিনা দিলহুর, উপসচিব (নার্সিং) ডা. মোহাম্মদ শিব্বির ওসমানী, বাংলাদেশ নার্স টিচার্স অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব ড. মোহাম্মদ মফিজউল্লাহ, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের পরিচালক (শৃঙ্খলা) মঞ্জুআরা বেগম, নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদপ্তরের উপপরিচালক (প্রশাসন) নাজমা পারভীন, বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল শাখার সভাপতি মোহাম্মদ কামাল হোসেন পাটওয়ারী, বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান জুয়েল, স্বাধীনতা নার্সেস পরিষদের মহাসচিব মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ, মোহাম্মদ মশিউর রহমান, মো. মতিউল ইসলাম, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মিটফোর্ড, ঢাকার উপসেবা তত্ত্বাবধায়ক হালিমা আক্তারসহ ঢাকা মহানগরের সব সরকারি হাসপাতালের সেবা তত্ত্বাবধায়ক/বিভিন্ন নার্সিং কলেজ ও ইনস্টিটিউটের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/আরকেজি