খুলনার তিন হাসপাতালে করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু

খুলনার তিন হাসপাতালে করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু
[সংগৃহীত ফাইল ছবি]

খুলনার পৃথক তিনটি হাসপাতালে করোনায় আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (২৫ জুন) সকাল ৮ টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। মারা যাওয়া ৯ জনের মধ্যে খুলনা করোনা হাসপাতালে ছয়জন, বেসরকারি গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দুইজন ও জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

খুলনা করোনা হাসপাতালের ফোকালপার্সন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় করোনায় ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে ৫ জন করোনায় এবং একজন উপসর্গে।

যশোরে ১১৬ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত্যু ৫

এছাড়া ১৩০ শয্যার করোনা হাসপাতালে সকাল ৮ টা পর্যন্ত ১৫৪ জন রোগী ভর্তি ছিল। যার মধ্যে রেডজোনে ৯৬ জন, ইয়োলোজোনে ২৩ জন, এইচডিইউতে ২০ জন এবং আইসিইউতে ১৬ জন চিকিৎসাধীন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ৩৯ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২২ জন।

খুলনা ২৫০ জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় খুলনার রূপসা উপজেলার সরদার মনিরুল (৬৮) নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ৬৯ জন। এরমধ্যে ৩০ জন পুরুষ ও ৩৯ জন নারী রয়েছেন।

বেসরকারি গাজী মেডিকেলর কলেজ হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী ডা. গাজী মিজানুর রহমান জানান, ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতরা হলেন, নগরীর সোনাডাঙ্গা এলাকার শাহানা জামান ও পিরোজপুর সদরের রহিমা খাতুন (৮০)।

তিনি আরও জানান, হাসপাতালে ৯৪ জন রোগী ভর্তি রয়েছে। এরমধ্যে আইসিইউতে ৯ জন এবং এইচডিইউতে ৭ জন চিকিৎসাধীন। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ২৯ জন ভর্তি হয়েছে এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৯ জন। এছাড়া হাসপাতালের আরটি পিসিআর মেশিনে ৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২২ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে।

খুলনায় করোনায় আরও ১১ জনের মৃত্যু

খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, খুমেকের পিসিআর মেশিনে বৃহস্পতিবার রাতে মোট ৩৮৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৯৯ জনের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। যার মধ্যে খুলনার ৩২১ জনের নমুনা পরীক্ষায় নতুন করে ১৭৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া বাগেরহাটে ১৪ জন, যশোরে ৬ জন, সাতক্ষীরায় ২ জন ও গোপালগঞ্জ জেলার ১ জন রয়েছেন। মোট নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ৫১ দশমিক ৫৫ শতাংশ হয়েছে বলে জানা গেছে।

ইত্তেফাক/এমআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x