রাজধানীর বাইরেও মৃত্যু ও শনাক্তের হার ঊর্ধ্বমুখী

রাজধানীর বাইরেও মৃত্যু ও শনাক্তের হার ঊর্ধ্বমুখী
ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা বিভাগের পাশাপাশি দেশের অন্য সাত বিভাগেও করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুহার ঊর্ধ্বমুখী। করোনায় আক্রান্ত ও করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীর বাইরে খুলনা বিভাগে সর্বোচ্চ ৪১ জন মারা গেছেন। এছাড়া বরিশাল বিভাগে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় আক্রান্ত ও করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগে ১৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৭ জন, রংপুর বিভাগে ১১ জন, সিলেট বিভাগে ১২ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। বিভাগীয় অফিস ও স্টাফ রিপোর্টারদের পাঠানো খবর।

খুলনা অফিস: খুলনা বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ও শনাক্তের সংখ্যা আবারও বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ও করোনার উপসর্গ নিয়ে খুলনা বিভাগে আরো ৪১ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ১৯ জনের। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। এর আগে গত বুধবার খুলনা বিভাগে ৩১ জনের মৃত্যু এবং ৮৬৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

স্বাস্থ্য পরিচালকের দপ্তর সূত্র জানায়, বুধবার সকাল ৮টা থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত খুলনায় সর্বোচ্চ ১৫ জন, কুষ্টিয়ায় ৯ জন, ঝিনাইদহে পাঁচ জন, যশোরে চার জন, মেহেরপুরে তিন জন, নড়াইল ও মাগুরায় দুই জন করে এবং চুয়াডাঙ্গায় এক জন মারা গেছেন।

করোনা ভাইরাস: বাংলাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন ৫,৬৮৩ জন  - BBC News বাংলা

বরিশাল অফিস: বরিশাল বিভাগে করোনায় আক্রান্ত ও করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে আক্রান্ত হয়ে বরিশাল জেলায় দুই জন, ঝালকাঠি জেলায় তিন জন, পটুয়াখালীতে দুই জন, বরগুনায় দুই জন এবং ভোলা ও পিরোজপুরে এক জন করে মারা গেছেন। এর বাইরে উপসর্গ নিয়ে শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) করোনা ওয়ার্ডে ৯ জন মারা গেছেন। শেবাচিমের পরিচালকের কার্যালয় ও বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. বাসুদেব কুমার দাস জানান, ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৭০১ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৬৫৬ জন শনাক্ত হয়েছে, যা পরীক্ষার ৩৮ দশমিক ৫৭ শতাংশ।

চট্টগ্রাম অফিস: বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত চট্টগ্রামে নতুন করে করোনা পজিটিভ হয়েছে ১ হাজার ৩১৫ জনের। আর মারা গেছে ১৭ জন। নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ৩৭ দশমিক ৪১ শতাংশ।

গত দুই দিন যাবৎ করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে। রোগীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় হাসপাতালগুলোতে পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। বেসরকারি হাসপাতালে কেবিন খালি নেই আর সরকারি হাসপাতালে ফ্লোরে থেকে চিকিত্সা নিতে হচ্ছে। নগরীর সরকারি হাসপাতালে ধারণক্ষমতার বেশি করোনা রোগী ভর্তি রয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, আজ নগরীতে ২৮টি নতুন আইসিইউ বেড চালু করা হবে। সিভিল সার্জন কার্যালয় জানায়, আইসিইউ বেড সরকারিতে ৪৩টি ও বেসরকারিতে ১১৯টি। বেসরকারি দুটি হাসপাতালে আরো ২৮টি আইসিইউ বেড বাড়ানো হচ্ছে। তার মধ্যে পার্কভিউ হাসপাতালে আরো ১২টি এবং এশিয়ান হাসপাতালে ১৬টি আইসিইউ বেড আজ শুক্রবার চালু করা হবে। আজ থেকেই রোগী ভর্তি করা হবে।

করোনায় আরও ৯৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪২৮০

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী: রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত এবং করোনার উপসর্গ নিয়ে আরো ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত এই হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিত্সাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে করোনা পজিটিভ পাঁচ জন, পজিটিভ থেকে নেগেটিভ দুই জন এবং করোনা উপসর্গে ১০ জন মারা যান। রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডািয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ নিয়ে জুলাই মাসের ২৯ দিনে রামেক হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে ৫৪০ জনের মৃত্যু হলো। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ হয়ে ১৭২ জন, করোনা পজিটিভ থেকে নেগেটিভ হওয়ার পর ৩৭ জন এবং বাকিরা করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান। রামেকের পরিচালক জানান, ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে রাজশাহীর চার জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের এক জন, নাটোরের তিন জন, পাবনার পাঁচ জন, নওগাঁর এক জন, কুষ্টিয়ার দুই জন ও বগুড়ার এক জন।

স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর: রংপুর বিভাগে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৬১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে এক দিনে নতুন করে আরো ৭৪৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে আরো ১১ জনের। রংপুরে তিন জন, দিনাজপুরে দুই জন, কুড়িগ্রামে দুই জন এবং ঠাকুরগাঁও, লালমনিরহাট ও গাইবান্ধায় এক জন করে মারা গেছেন। সুস্থ হয়েছেন ৬০৪ জন। এ নিয়ে বিভাগে ২ লাখ ১৩ হাজার ২১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে মোট ৪২ হাজার ৯৮৬ জন আক্রান্ত পাওয়া গেছে। এ পর্যন্ত ৮৯৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রংপুরে ১৭৬, গাইবান্ধায় ৭০, ঠাকুরগাঁওয়ে ৮০, পঞ্চগড়ে ৭৭, কুড়িগ্রামে ৮১, দিনাজপুরে ১৮০, নীলফামারীতে ৫৯ এবং লালমনিরহাট জেলায় ২৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রংপুর বিভাগের পাঁচ স্থলবন্দর দিয়ে কোনো যাত্রী ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেনি।

সিলেট অফিস: সিলেট বিভাগে করোনায় আরো ১২ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এর মধ্যে সিলেট জেলার বাসিন্দা আট জন। এ নিয়ে বিভাগে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৬৭। এই সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৬৬০ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩৩৩ জন।

চুয়াডাংগায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে দুজনের মৃত্যু - khabor.com | First  Bangla Online News World Wide |

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হিমাংশু লাল রায় এ তথ্য জানিয়ে বলেন, শনাক্ত হওয়া ৬৬০ জনের মধ্যে ৩১২ জনই সিলেট জেলার। সুনামগঞ্জের ১৩০ জন, হবিগঞ্জের ৫৩ জন ও মৌলভীবাজারের ৯১ জন। এছাড়া ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন আরো ৭৪ জন রোগীর করোনা শনাক্ত হয়। নতুন ৬৬০ জনসহ বিভাগে করোনা প্রমাণিত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৮ হাজার ৩১৪। এদিকে সিলেটের চার জেলায় র্যাপিড এন্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে ১৭৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হন। তাদের মধ্যে সিলেটে ৩৯, সুনামগঞ্জে ৮৮, হবিগঞ্জে ৪৪ ও মৌলভীবাজার জেলায় ৩৩ জন রয়েছেন।

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: গত ২৪ ঘণ্টায় ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে করোনা পজিটিভ ও উপসর্গ নিয়ে আরো ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিন জন এবং করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান ১৩ জন। করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন জানান, করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে নতুন ৮৩ জনসহ ভর্তি এখন পর্যন্ত ৪৫৩ জন এবং আইসিউতে চিকিত্সাধীন ২০ জন। এদিকে সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৬৬০টি নমুনা পরীক্ষায় আরো ৪৫৮ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৭ দশমিক ৫৯ শতাংশ। জেলায় মোট আক্রান্ত ১৪ হাজার ৮৫ জন। সুস্থ হয়েছেন ১০ হাজার ৭০৫ জন।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x