করোনা একসময় সাধারণ ঠাণ্ডাজ্বরে পরিণত হবে

অক্সফোর্ড টিকার আবিষ্কারক সারাহ গিলবার্ট
করোনা একসময় সাধারণ ঠাণ্ডাজ্বরে পরিণত হবে
করোনা ভাইরাসের প্রতীকী ছবি।

কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস একসময় সাধারণ সর্দিজ্বর বা ঠাণ্ডাজ্বরে রূপ নেবে। করোনার টিকা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলা উদ্ভাবনকারী বিশেষজ্ঞ দলের প্রধান এবং অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সারাহ গিলবার্ট এমনটাই মনে করেন। ৫৯ বছর বয়সি এই অধ্যাপক বর্তমানে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনার ইনস্টিটিউট প্রধানের দায়িত্বে রয়েছেন।

এখন পর্যন্ত বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত করোনা টিকা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলা বা প্রস্তুত প্রণালী উদ্ভাবন করেছে এই জেনার ইনস্টিটিউট। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) যুক্তরাজ্যের লন্ডনে রয়্যাল সোসাইটি অব মেডিসিনের উদ্যোগে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সেই সম্মেলনে বক্তব্য দেন সারাহ গিলবার্ট। ডেইলি মেইলের খবরে বলা হয়, গিলবার্ট বলেন, ভাইরাসের প্রবণতা হলো— এটির বিস্তার যত বেশি ঘটবে, তত বেশি নির্বিষ হবে। আগামী দিনগুলোতে সার্স-কোভ-২ বা নোভেল করোনা ভাইরাসের আরও প্রাণঘাতী পরিবর্তিত ধরনের আবির্ভাব ঘটবে—এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই। পাশাপাশি, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে টিকাদান কর্মসূচি চলছে এবং আগামী দিনগুলোতে এর ব্যাপ্তি আরও বাড়বে। বিশ্ব জুড়ে টিকাদান কর্মসূচির ব্যাপ্তি বাড়লে তার ভাইরাসের বংশবৃদ্ধিতে নিশ্চিতভাবেই প্রভাব ফেলবে এবং এর ধ্বংসক্ষমতা কমিয়ে আনবে।

নিজ বক্তব্যের পক্ষে যুক্তি দিয়ে অধ্যাপক সারাহ গিলবার্ট আরও বলেন, ‘সার্স-কোভ-২ বা নোভেল করোনা ভাইরাস ছাড়াও এই গোত্রের আরও চারটি করোনা ভাইরাসের আবির্ভাব পৃথিবীতে হয়েছিল এবং সেগুলো এখনো সক্রিয় আছে। মানবদেহে এসব করোনা ভাইরাস সংক্রমিতও হয়; কিন্তু আমরা এখন আর সেগুলো নিয়ে আলোচনা করি না। কারণ, সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এদের প্রাণঘাতী হয়ে ওঠার প্রবণতা কমে এসেছে এবং সেই সঙ্গে মানবদেহের অভ্যন্তরীণ প্রতিরোধ ক্ষমতাও শক্তিশালী হয়েছে। ফলে, এখন আর সেই করোনা ভাইরাসগুলো মানুষের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ নয়।

ইত্তেফাক/এসআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x