পূজার কারণে ভোটের তারিখ পেছাতে রিটার্নিং কর্মকর্তার সুপারিশ

পূজার কারণে ভোটের তারিখ পেছাতে রিটার্নিং কর্মকর্তার সুপারিশ
নির্বাচন কমিশন ভবন। ফাইল ছবি

সনাতন ধর্মালম্বীদের সরস্বতী পূজার কারণে ভোট গ্রহণের তারিখ পেছাতে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কাছে সুপারিশ করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা। ইসি সচিবালয়ের সিনিয়র সচিবকে শুক্রবার রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আবদুল বাতেন নির্বাচন পেছানোর সুপারিশ করে চিঠি পাঠান।

চিঠিতে রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, নির্বাচন কমিশন সচিবালয় ২২ ডিসেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু ওইদিন সনাতন ধর্মালম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব বিদ্যার দেবী শ্রীশ্রী সরস্বতী পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এই পূজা লগ্ন বা তিথির মধ্যে সম্পন্ন করতে হয় বিধায় পূজার তারিখ পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।

চিঠিতে তিনি উল্লেখ করেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এর অধিভুক্ত এলাকাসমূহে বাপক সংখ্যক সনাতন ধর্মালম্বী লোকের বসবাস। এখানে সনাতন ধর্মালীদের সর্ববৃহৎ পূজা মন্ডপ রামকৃষ্ণ মিশন অবস্থিত। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলও ওই এলাকাতে অবস্থিত। রামকৃষ্ণ মিশন ও জগন্নাথ হলে অত্র এলাকার আশেপাশের অনেক প্রতিষ্ঠান থেকে পূজা উপলক্ষে প্রচুর সনাতন ধর্মাবলম্বী লোকের সমাগম ঘটে। এছাড়া নির্বাচন উপলক্ষে যেসকল প্রতিষ্ঠান ভোটকেন্দ্র হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে এর মধ্যে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে পূজা অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। যেহেতু পুরান ঢাকা একটি ঘনজনবসতিপূর্ণ সংকীর্ণ এলাকা, তাই ওই এলাকার সনাতন ধর্মালম্বীদের এসকল প্রতিষ্ঠান ছাড়া উক্ত পূজা পালন করা অনেকাংশেই সম্ভপর হবে না।

রিটার্নিং কর্মকর্তা চিঠিতে জানান, এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) জগন্নাথ হল শাখা নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের জন্য একটি পত্র এই কার্যালয়ে দাখিল করেছে। সার্বিক বিবেচনায় সনাতন ধর্মালনীদের ধর্মীয় কাজ সুচারুরূপে পালন করার স্বার্থে নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তন করার সুপারিশের যৌক্তিকতা বিবেচনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্ত আবেদন পত্রটি এতদসংগে মহোদয়ের নিকট প্রেরণ করা হলো।

রিটার্নিং কর্মকর্তা আবদুল বাতেন তার সুপারিশের সঙ্গে ঢাবির জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মিহির লাল সাহা’র আবেদনপত্রটিও জুড়ে দিয়েছেন।

মিহির লাল সাহা গত ৯ জানুয়ারি রিটার্নিং কর্মকর্তাকে নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের জন্য একটি চিঠি লিখেন। চিঠিতে তিনি বলেন, ৩০ জানুয়ারি ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচনের দিন ঢাকা শহরের সকল নাগরিক একযোগে ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে তাদের পছন্দের প্রতিনিধিকে ভোট দেবেন। কিন্তু ৩০ জানুয়ারি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব বিদ্যার দেবী শ্রীশ্রী সরস্বতী পূজা সারা দেশে অনুষ্ঠিত হবে। সর্ববৃহৎ পরিসরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ হলে সরস্বতী পূজা উদযাপিত হয়ে থাকে। পূজার দিন পূজামন্ডপে লাখ লাখ ভক্ত ও দর্শণার্থী উপস্থিত হয়ে থাকেন। ওইদিন একই সাথে নির্বাচন কেন্দ্রে এবং পূজা মন্ডপে উপস্থিত হওয়া সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য কষ্টকর হয়ে পড়বে।

আরও পড়ুন: শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এন্টি র‌্যাগিং কমিটি গঠনে হাইকোর্টের নির্দেশ

এর আগে সরস্বতি পূজার কারণে নির্বাচন পেছানোর জন্য দু’দফা আবেদন করেছে বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ। এছাড়া নির্বাচন পেছাতে প্রধানমন্ত্রী এবং নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন জানিয়েছে জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ। এছাড়া একই কারণে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদনও করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ। বাসস

ইত্তেফাক/কেকে

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত