বরিশালে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী হত্যায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

বরিশালে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী হত্যায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
ছবি: প্রতীকী

বরিশালের হিজলা উপজেলায় দাবি করা যৌতুক না পেয়ে স্ত্রীকে হত্যায় স্বামী মো. মনির হোসেনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে দোষ প্রমাণিত না হওয়ায় নিহতের শ্বশুড় ও দেবরকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে। বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক আবু শামীম বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পরপরই কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে দণ্ডিত মনির হোসেনকে কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট ফয়জুল হক ফয়েজ জানান, যৌতুক দাবির ৫০ হাজার টাকা দিতে না পাড়ায় ২০১৩ সালের ৬ জানুয়ারি হিজলা উপজেলার বাউশিয়া গ্রামের নিজ বাড়িতে মনির হোসেন তার স্ত্রী মাকসুদা বেগমকে কিল ঘুষি মেরে হত্যা করে। এ ঘটনায় মাকসুদা বেগমের ভাই অলি উদ্দিন বাদি হয়ে পরদিন ৭ জানুয়ারি মাকসুদার স্বামী মনির হোসেন, শ্বশুড় শফি রাড়ি, শ্বাশুড়ি রাশিদা বেগম এবং দেবর নাসির রাড়িকে আসামি করে হিজলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। একই বছরের ২০১৩ সালের ১৯ মে ৪ আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে আদালতে এই মামলার অভিযোগপত্র দেন তদন্ত কর্মকর্তা।

মামলার বিচার কার্যক্রম চলাবস্থায় শ্বাশুড়ি রাশিদা বেগমের মৃত্যু হয়। পরে ট্রাইব্যুনালে ১৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে হত্যার দায় প্রমাণিত হওয়ায় নিহত মাকসুদার স্বামী মো. মনির হোসেনকে মৃত্যুদণ্ড এবং নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তার শ্বশুড় ও দেবরকে বেকসুর খালাস দেন বিচারক।

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফয়জুল হক ফয়েজ বলেন, এই রায়ের মধ্য দিয়ে ন্যায় বিচার কায়েম হয়েছে। এতে অপরাধ প্রবনতা কমবে।

আসামি পক্ষের আইনজীবী মিজানুর রহমান টিটু বলেন, এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন।

ইত্তেফাক/এসি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত