৩০ বছর পর সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ ফের শুরু

৩০ বছর পর সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ ফের শুরু
সগিরা মোর্শেদ [ছবি : সংগৃহীত]

৩০ বছর পর সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ ফের শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে সাক্ষ্য দেন সগিরা মোর্শেদের স্বামী ও মামলার বাদী আব্দুস সালাম চৌধুরী। জবানবন্দি শেষ না হওয়ায় আগামী ২০ জানুয়ারি তার অসমাপ্ত জবানবন্দি গ্রহণ ও জেরার জন্য দিন ধার্য করেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ। জবানবন্দিতে সালাম চৌধুরী স্ত্রী নিহতের পূর্বাপর ঘটনা আদালতের সামনে তুলে ধরেন। একই সঙ্গে ঐ হত্যাকাণ্ডে অভিযুক্ত চার জনকে দায়ী করে তিনি আদালতে জবানবন্দি দেন। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট তাপস কুমার পাল।

জবানবন্দি গ্রহণের আগে কারাগার থেকে হাজির করা হয় তিন আসামিকে। আর জামিনে থাকা সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহীন হাজির হন আদালতে।

১৯৮৯ সালের ২৫ জুলাই সগিরা মোর্শেদ ভিকারুননিসা নূন স্কুল থেকে মেয়েকে আনতে গিয়ে খুন হন। পরে মিন্টু নামে এক আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় ডিবি পুলিশ। দীর্ঘদিন হাইকোর্টের আদেশে মামলার বিচারকাজ বন্ধ ছিল। পরে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২৮ বছর পর ঐ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নেয় হাইকোর্ট। নতুন তদন্তের দায়িত্ব পায় পিবিআই। ঐ তদন্তে সগিরা মোর্শেদের ভাশুর ডা. হাসান আলী চৌধুরী, তার স্ত্রী সায়েদাতুল মাহমুদা ওরফে শাহিন, শাহিনের ভাই আনাছ মাহমুদ রেজওয়ান ও মারুফ রেজাকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পিবিআই। এতে দেখা যায়, স্বজনদের পরিকল্পনাতেই খুনের শিকার হন ঐ নারী। আর সগিরা মোর্শেদকে গুলি করে হত্যা করেন এই মারুফ রেজা।

ইত্তেফাক/এমআর

Nogod
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত