খুলনায় গ্রাম্য চৌকিদার হত্যায় ২ জনের যাবজ্জীবন

খুলনায় গ্রাম্য চৌকিদার হত্যায় ২ জনের যাবজ্জীবন
ফাইল ছবি।

খুলনায় গ্রাম্য চৌকিদার আব্দুল জলিল হত্যা মামলায় দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তাদের দুজনকে পাঁচ লাখ টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে এক বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. নজরুল ইসলাম হাওলাদার এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার রেজওয়ান গোলদারের ছেলে শহিদুল গোলদার ও পাইকগাছা উপজেলার শ্রীকণ্ঠপুর গ্রামের সুলতান শেখের ছেলে আনোয়ারুল শেখ। দÐপ্রাপ্ত আসামিরা পলাতক রয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো. আহাদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ২০০৪ সালের ২১ জানুয়ারি পাইকগাছা থানার পুলিশ স্থানীয় কাটিপাড়া বাজারে চেকপোস্ট বসায়। দুপুর ২টার দিকে কাটিপাড়া বাজারে মোটরসাইকেলের তিন আরোহীর গতিরোধ করে পুলিশ। এ সময় শহিদুল কোমর থেকে পিস্তল বের করে পুলিশ সদস্য দীপঙ্করের গলায় ঠেকায়। তখন তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ধস্তাধস্তি দেখে গ্রাম্য চৌকিদার জলিল এগিয়ে গেলে শহিদুল তাকে লক্ষ্য করে গুলি করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। অন্য পুলিশ সদস্য জামাল এগিয়ে গেলে তার কাছ থেকে রাশেদ গোলদার রাইফেল কেড়ে নেয় ও মোটরসাইকেলচালক আনোয়ার ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। তবে পুলিশের হাতে আটক হয় শহিদুল গোলদার।

এ ঘটনায় পাইকগাছা থানার এসআই মো. আবু দাউদ শিকদার বাদি হয়ে তিনজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার আসামিরা হলেন- শহিদুল গোলদার, রাশেদ গোলদার ও আনোয়ার।

এ মামলায় পুলিশ আদালতে তিন দফায় চার্জশিট দাখিল করে। পরবর্তীতে নিহতের স্ত্রীর নারাজি আবেদনের কারণে দ্বিতীয় দফায় আরও তিনজনের নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয় চার্জশিটে। তারা হলেন- ওই এলাকার মজিদ গোলদার, আজিজ গোলদার ও ফজলুর রহমান মোড়ল। উচ্চ আদালতের নির্দেশে পরবর্তীতে এই তিনজনকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

ইত্তেফাক/ইউবি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x