বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা শুক্রবার, ০৭ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭
৩১ °সে

চামড়া সংরক্ষণের লবণের ঘাটতি নেই: বিসিক 

দেশে লবণের মজুদ সাড়ে ১১ লাখ মেট্রিকটন
চামড়া সংরক্ষণের লবণের ঘাটতি নেই: বিসিক 
ফাইল ছবি

কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণে দেশের লবণের কোনো ঘাটতি নেই বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক)। সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দেশে বর্তমানে ১১ লাখ ৫৭ হাজার মেট্রিকটন লবণ মজুদ রয়েছে। প্রতিবছর ঈদুল আজহায় দেশব্যাপী কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণের জন্য প্রায় ১ লাখ মেট্রিকটন লবণের প্রয়োজন হয়। ইতিমধ্যে জেলা ও উপজেলাভিত্তিক ডিলার ও পাইকারি লবণ বিক্রেতাদের মোবাইল নম্বরসহ তালিকা প্রণয়ন করা হয়েছে। এ তালিকা ঈদের আগেই এতিমখানা, মাদ্রাসা, মসজিদ, স্কুল-কলেজ, হাট-বাজার ও ইউনিয়ন পরিষদসহ কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে সরবরাহ করা হবে। ফলে লবণের কোনো ঘাটতি হবে না।

আজ মঙ্গলবার শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিসিকের পক্ষ থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

অতীতে কোরবানির সময় লবণের ঘাটতির কথা বলে একশ্রেণির আমদানিকারক লবণ আমদানির চেষ্টা করে। স্থানীয় লবণ উৎপাদনের সঙ্গে জড়িতদের রক্ষার স্বার্থে এ বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে সরকার। অভিযোগ রয়েছে, অসাধু আমদানিকারকরা লবণের ঘাটতির গুজব ছড়িয়ে বাজার অস্থিতিশীল করার চেষ্টা চালায়, যাতে আমদানি করা যায়।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, গত ঈদুল আজহায় কোরবানিকৃত পশুর সংখ্যার বিপরীতে লবণের চাহিদা ছিল ৮১ হাজার ৮২০ মেট্রিকটন। ফলে মজুদকৃত লবণ দিয়ে এবারের ঈদুল আজহার চাহিদা মিটিয়ে আরো প্রায় ৮ মাসের লবণের চাহিদা পূরণ সম্ভব হবে। অন্যদিকে আর ৪ মাস পর হতে লবণ উৎপাদনের নতুন মৌসুম শুরু হবে। ফলে দেশে লবণের কোনো ধরণের ঘাটতির আশঙ্কা নেই বলে বিসিক জানিয়েছে।

বিসিকের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ঈদুল আজহায় সার্বিক লবণ উৎপাদন ও সরবরাহ পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক তদারকির জন্য সংস্থাটি আগাম প্রস্তুতি নিয়েছে। এ লক্ষ্যে বিসিকের প্রধান কার্যালয়ে ইতোমধ্যে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ চালু করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/কেকে

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত