বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি হবে কিনা সিদ্ধান্ত আজ

বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি হবে কিনা সিদ্ধান্ত আজ
ফাইল ছবি

বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি করা হবে কিনা তা এনিয়ে আজ শুক্রবার ভারতের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে সিদ্ধান্ত দেওয়ার কথা রয়েছে। পূর্বের এলসির বিষয়ে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে বাংলাদেশে আমদানিকারকরা জানিয়েছেন। তবে সন্ধ্যা ৭টায় এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এবিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। রপ্তানি বন্ধের আগে হিলিসহ দেশের বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে আমদানির জন্য খোলা এলসির পেঁয়াজের পরিমাণ এক লাখ ৩০ হাজার মেট্রিকটন। যা বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় আছে।

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারকরা জানান, গত ১৪ সেপ্টেম্বর ভারত কোনো পূর্ব ঘোষনা ছাড়াই বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ায় গত ৫ দিন ধরে ভারত সীমান্তে ট্রাকগুলো লোড অবস্থায় আটকে যায়। ফলে অতিরিক্ত গরম ও বৃষ্টিতে পেঁয়াজ পচে নষ্ট হয়। এ অবস্থায় ভারত শুধুমাত্র ১৩ সেপ্টেম্বরে টেন্ডার হওয়া পেঁয়াজ রপ্তানির অনুমতি দিলে গত ১৯ সেপ্টেম্বর ২৪৬ মেট্রিকটন পেঁয়াজ হিলি স্থলবন্দরে প্রবেশ করে। আর নতুন করে টেন্ডারের অনুমতি না মেলায় ফিরিয়ে নেওয়া হয় আটকে থাকা দুই শতাধিক পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক। এতে করে দুই দেশের ব্যবসায়ীরা আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হন।

স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক মোজাম হোসেন জানান, বাংলাদেশে রপ্তানির বিষয়ে ভারতের মুম্বাইয়ের একটি আদালতে গত ২৫ সেপ্টেম্বর রপ্তানিকারকরা একটি রিট করেন। রিটের শুনানির পর ৩০ সেপ্টেম্বর সেদেশের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত বাণিজ্য মহাপরিচালক বিজয় কুমার স্বাক্ষিরিত একটি নির্দেশনায় বলা হয়, গত ১৪ সেপ্টেম্বরের আগে যে সমস্ত এলসি খোলা হয়েছে তার সংখ্যা ও কপি এবং তাতে কী পরিমাণ পেঁয়াজ হবে তার হিসাব ভারতের আঞ্চলিক বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ে জমা দিতে বলেন।

সে অনুযায়ী বাংলাদেশের আমদানিকারকদের খোলা পেঁয়াজের এলসির কপি জমা দেওয়া হলে ৭ অক্টোবর এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দুইদিন পরে আজ শুক্রবার সিদ্ধান্ত আসতে পারে বলে ভারতের রপ্তানিকারকরা এমনই আভাস দিয়েছেন। আমরা রপ্তানিকারকদের সাথে যোগাযোগ করছি। তবে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।

ইত্তেফাক/কেকে

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত