বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭
৩০ °সে

পণ্য আমদানিতে অগ্রিম কর প্রত্যাহারের দাবি পোল্ট্রি খামারি-উদ্যোক্তাদের

পণ্য আমদানিতে অগ্রিম কর প্রত্যাহারের দাবি পোল্ট্রি খামারি-উদ্যোক্তাদের
ফাইল ছবি

পণ্য আমদানিতে নতুনভাবে আগাম কর প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে ফিড ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ এবং ব্রিডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের নেতারা। সংগঠনের নেতারা বলেন, বিগত বছরের মত এবারও আশা ভঙ্গ হয়েছে পোল্ট্রি খামারি ও উদ্যোক্তাদের। পোল্ট্রি ফিডের অত্যাবশ্যকীয় কাঁচামাল ‘ভুট্টা’ আমদানিতে অগ্রিম আয়কর এবং ‘সয়াবিন অয়েল কেক’ এর ওপর থেকে রেগুলেটরি শুল্ক প্রত্যাহার না হওয়ায় এ হতাশা।

পোল্ট্রি শিল্প খাতের বাজেট নিয়ে বুধবার মহাখালিতে অবস্থিত প্যারাগন হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

ফিড ইন্ডাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এহতেশাম বি. শাহজাহান বলেন, সয়াবিন অয়েল কেক এর ওপর আরোপিত ৫ শতাংশ রেগুলেটরি ডিউটি, কটন সিড ও পাম নাটসের ওপর থেকে ৫ শতাংশ সিডি ও ৫ শতাংশ এটিটি এবং ভুট্টার ওপর থেকে ৫ শতাংশ এআইটি প্রত্যাহারই ছিল এবারের অন্যতম দাবি। কিন্তু-সয়াবিন অয়েল কেক আমদানিতে আরডি এবং ভুট্টা আমদানিতে এআইটি বহাল রাখা হয়েছে। পাম নাটস বা কারনেল এবং কটন সিডের ওপর থেকে কাস্টমস শুল্ক তুলে নিয়ে নতুন করে ৫ শতাংশ হারে রেগুলেটরি ডিউটি আরোপ করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে ফিডের উপকরণ হিসেবে যে ৩টি উপকরণে কর ও শুল্ক ছাড়ের ঘোষণা দেয়া হয়েছে সেগুলোর সঙ্গে ফিড ইন্ডাস্ট্রির কোন সম্পর্ক নেই। ফলে কার্যত তেমন কোন সুফল আসবে না।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. আহসানুজ্জামান ডি-অয়েলড রাইস ব্রান (ডিওআরবি) এর উপরও সমহারে শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করেন তিনি। তাঁর মতে যেহেতু এ দু’টি উপকরণ মূলত একই পণ্য তাই শুল্ক সমান না হলে এক পণ্যের নামে অন্য পণ্য রপ্তানি করে মুনাফা লুটার চেষ্টা করবে সুযোগ সন্ধানীরা। তবে সবকিছু ছাড়িয়ে সরকারের নতুন একটি সিদ্ধান্ত মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেন আহসানুজ্জামান।

আরো পড়ুন: খাশোগি হত্যায় সৌদি আরব জড়িত: জাতিসংঘ

ব্রিডার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি রকিবুর রহমান টুটুল বলেন, পোল্ট্রিখাত মূল্য সংযোজন কর (মূসক) থেকে অব্যাহতি পাওয়ার কারণে হ্রাসকৃত অর্থ সমন্বয়েরও কোন সুযোগ নেই। তাই এ বিধান প্রযোজ্য হলে একদিন বয়সী জিপি/পিএস বাচ্চা, যন্ত্রপাতি ও কাঁচামাল আমদানির ক্ষেত্রে বিরূপ প্রভাব পড়বে। বিপুল পরিমাণ অর্থ অগ্রিম কর হিসেবে কর্তন করা হবে। ফলশ্রুতিতে বাচ্চার উৎপাদন কার্যক্রমে চলতি মূলধনের সংকট সৃষ্টি হবে। সর্বোপরি পোল্ট্রির ডিম ও মাংস উৎপাদন ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

পোল্ট্রি সাশ্রয়ী মূল্যের ডিম ও মুরগির মাংসের যোগান নিরবচ্ছিন্ন রাখতে এবং প্রতিযোগিতামূলক রপ্তানি বাজারে বাংলাদেশি পোল্ট্রি পণ্যের প্রবেশ সহজতর করতে পোল্ট্রি শিল্পের যৌক্তিক দাবিগুলো পুনর্বিবেচনার দাবি জানান পোল্ট্রি সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ পোল্ট্রি ইন্ডাস্ট্রিজ সেন্ট্রাল কাউন্সিলের (বিপিআইসিসি) সভাপতি মসিউর রহমান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

ইত্তেফাক/এমআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত