চবিতে ছাত্রলীগ কর্মীর হাতে মারধরের শিকার দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী

চবিতে ছাত্রলীগ কর্মীর হাতে মারধরের শিকার দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী
মারধরের শিকার শুক্কুর আলম। ছবি: ইত্তেফাক

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শুক্কুর আলম নামে এক শিক্ষার্থীকে বেধড়ক পিটিয়েছে ছাত্রলীগের এক কর্মী। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রবিবার রাত ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে এ ঘটনা ঘটে। মারধরের শিকার শুক্কুর আলম দর্শন বিভাগের ২০১৬-১৭ সেশনের শিক্ষার্থী। আহত শুক্কুর আলমকে তার সহপাঠীরা উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করার পর সেখানেই তার চিকিৎসা দেওয়া হয়।

জানা যায়, আগামীকাল পরীক্ষা থাকায় দোকান থেকে রুটি কিনতে গিয়েছিলেন শুক্কুর আলম। পরে ছাত্রলীগের বিজয় গ্রুপের কর্মী রিফাত সেখানে তাকে অকারণে উত্ত্যক্ত করায় শুক্কুর আলম প্রতিবাদ করেন। এ সময় তিনি রুটি কিনে সোহরাওয়ার্দী হলের কাছাকাছি আসলে পেছন থেকে এসে তার উপর হামলা করেন রিফাত। এ সময় কিল-ঘুষি, লাথির পর শুক্কুরের কিছুদিন আগে অপারেশন করা চোখেও আঘাত করা হয়।

সূত্রে জানা যায়, অধিকাংশ সময় নেশাগ্রস্ত থাকেন মারধরকারী রিফাত। রিফাত হোসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী।

এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ প্রতিবন্ধী ছাত্রসমাজের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (ডিসকু) রাত ৯টায় সোহরাওয়ার্দী হলের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে। ডিসকুর সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক গণমাধ্যমকে বলেন, 'ওই ছাত্রলীগ কর্মীর বিচারের দাবিতে সোমবার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে লিখিত আকারে জানানো হবে। এর আগেও অনেক ঘটনায় আমরা ছাত্রলীগকে ছাড় দিয়েছি। কিন্তু এবার আমরা মারধরকারী রিফাতকে গ্রেফতার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবো।'

এ বিষয়ে চবির ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী বলেন, 'বিষয়টি আমরা জেনেছি। প্রক্টরিয়াল বডির কয়েকজনকে পাঠানো হয়েছে। তার ট্রিটমেন্টের ব্যবস্থা করা হবে। লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা ব্যবস্থা নিবো। তবে এর আগেও কয়েকবার ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলে প্রতিবন্ধীরা মারধরের শিকার হয়েছে। সোহরাওয়ার্দী হলে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মারামারিতে প্রতিবন্ধীদের রুম ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। তবে এসবের কোন প্রতিকার বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়নি।'

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত