বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭
৩০ °সে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ‘গতানুগতিকতার বাজেট’ পেশ হবে আজ

এবার বরাদ্দ ৮৬৯ কোটি টাকা, যা গত বছরের চাইতে ৬০ কোটি টাকা বেশি
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ‘গতানুগতিকতার বাজেট’ পেশ হবে আজ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় । ছবি: সংগৃহীত

করোনাকালীন পরিস্থিতি মোকাবেলা কিংবা গবেষণায় বিশেষ বরাদ্দ, এসবের কোনোটি ছাড়াই এবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গতানুগতিক বরাদ্দের বাজেট ঘোষিত হবে। আজ বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এ বাজেট উত্থাপন করবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মো. সামাদ। এ বছর কোষাধ্যক্ষ পদ খালি থাকায় তিনি উপস্থাপনের দায়িত্ব পান। বিকেল সাড়ে তিনটায় অনুষ্ঠিত এ বাজেট অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবে সিনেটের চেয়ারম্যান ও উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

সিনেটের প্রথম বার্ষিক অধিবেশন বসে গত মাসের ১৪ জুন। করোনাকালীন পরিস্থিতির কারণে বাজেট তৈরি না হওয়ায় ওই অধিবেশন উত্থাপন করা যায়নি বাজেট। পরে বাজেট অধিবেশনের জন্য মুলতবি করা হয় সিনেটের অধিবেশন। দীর্ঘ প্রায় দেড় মাস পর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে যথাসম্ভব সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে শেষ করা হবে এ অধিবেশন। আর সিনেটের এই মুলতবি অধিবেশনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের মূল বাজেট এবং ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট উপস্থাপন করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মো. সামাদ বলেন, এবারের বাজেটে অন্যবারের তুলনায় আলাদা কিছু নেই। তবে বিভিন্ন খাতে কিছু অর্থ বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া নতুন কয়েকটি খাত সৃষ্টি করা হয়েছে। বাজেট উত্থাপন করা হলে এসব বিষয় সম্পর্কে জানা যাবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স কমিটির একজন সদস্য জানায়, এবারের বাজেটেও অন্যান্যবারের মতো শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীর জন্য বরাদ্দের সিংহ ভাগ অংশ খরচ করা হবে। বাকী অর্থ বিভিন্ন খাতে বণ্টন করা হবে। তবে এবারের বাজেটে করোনা মোকাবেলায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের গৃহীত কার্যক্রমগুলোর জন্য সংশোধিত বরাদ্দ ৫০ লাখ টাকা থেকে ১ কোটি টাকা করা হবে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ডিগ্রি প্রদানের জন্য যে বিশেষ সমাবর্তন করা হবে তার জন্য ২ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে।

ওই সূত্রটি জানায়, শিক্ষার্থীদের জন্য দেশে-বিদেশে শিক্ষা বিনিময় খাত তৈরি করা হয়েছে। এ খাতের জন্যও আলাদা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের জন্য আলাদা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। শিক্ষকদের আন্তর্জাতিক জার্নালে গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশের জন্য বরাদ্দ ২০ লাখ থেকে ১ কোটি টাকা করা হয়েছে। এবার শিক্ষা বিনিময় খাত নামের একটি নতুন খাত সৃষ্টি করা হয়েছে। সেখানে ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে, মূল বাজেটে তা ১ কোটি টাকা করা হবে। তাছাড়া আবাসিক টেলিফোন ভাতা ১ কোটি থেকে ৩ কোটি টাকা করা হয়েছে।

এবারের বাজেট সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমান বলেন, করোনা মোকাবেলাকে এবারের বাজেটে গুরুত্ব দিতে হবে। এবার দেখার বিষয় হলো করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য অনলাইন ক্লাসের বিষয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের নানা প্রকার অসুবিধাকে আছে, কিভাবে মোকাবেলা করা যায়, সে সমস্ত বিষয়ে আগ্রহ তৈরি করতে আলাদা কোন বরাদ্দ আছে কিনা এগুলোই আকর্ষণের বিষয় হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বাজেট একটি গতানুগতিক বাজেট। সরকার যা বরাদ্দ দেয় তাই আমাদের নির্দিষ্ট কিছু খাত রয়েছে, সেখানেই আমরা ব্যয় করি। এখানে আহামরি কোন নতুনত্ব থাকে না।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত