বশেমুরবিপ্রবির কম্পিউটার চুরির অভিযোগে যুবলীগ নেতা বহিষ্কার

বশেমুরবিপ্রবির কম্পিউটার চুরির অভিযোগে যুবলীগ নেতা বহিষ্কার
বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা পলাশ শরীফ।

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবির) ৪৯টি কম্পিউটার চুরির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে গোপিনাথপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি পলাশ শরীফকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা শাখার সভাপতি জাহেদ মাহমুদ বাপ্পী ও সাধারণ সম্পাদক মোল্লা মো. ফিরোজ মাহমুদ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বশেমুরবিপ্রবির ৪৯টি কম্পিউটার চুরির বিষয়ে সদর উপজেলার গোপিনাথপুর ইউনিয়নের সভাপতি পলাশ শরিফের জড়িত থাকার অভিযোগ উঠেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সভাপতি পদ থেকে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সংগঠনের সকল প্রকার কর্মকাণ্ড থেকে তাকে বিরত থাকার আদেশ দেয়া হলো।

জানা যায়, ঈদের ছুটিতে বশেমুরবিপ্রবির কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার থেকে ৪৯টি কম্পিউটার চুরি হয়। এ বিষয়ে গত সোমবার (১০ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. নূরউদ্দিন আহমেদ গোপালগঞ্জ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে বৃহস্পতিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজধানীর মহাখালীর হোটেল ক্রিস্টল ইনে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৩৪টি কম্পিউটার উদ্ধার করেন। এসময় হোটেলের মালিক দুলাল মিয়া (৩৫) ও হোটেল বয় হুমায়ূনকে (৩৬) আটক করে পুলিশ। দুলাল মিয়া কুমিল্লা জেলার তিতাস উপজেলার ইদারচর গ্রামের সেলিম মিয়ার ছেলে ও হোটেল বয় হুমায়ূন ময়মনসিংহ জেলার চোরখাই গ্রামের মইজউদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দুলাল মিয়া বলেন, তিনি কম্পিউটারগুলো হোটেলের অপর মালিক পলাশ শরীফের থেকে ক্রয় করেছেন এবং সেগুলো তিনি হোটেলের একটি কক্ষে রাখেন। এদিকে ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা পলাশ শরীফ পলাতক রয়েছেন।

ইত্তেফাক/এমআরএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত