রাবি সাংবাদিকের মুক্তি ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি

রাবি সাংবাদিকের মুক্তি ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি
ছবি: সংগৃহীত

তথ্যপ্রযুক্তি আইনের আওতায় করা মামলায় গ্রেফতার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মানিক রায়হান বাপ্পির নিঃশর্ত মুক্তি ও বিতর্কিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (জবিসাস)।

রবিবার (১৫ নভেম্বর) সংগঠনের দপ্তর, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আহসান জোবায়ের সাক্ষরিত এক যৌথ বিবৃতিতে সভাপতি হুমায়ুন কবির হুমু ও সাধারণ সম্পাদক লতিফুল ইসলাম এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ওই সাংবাদিকের দ্রুত মুক্তির দাবি করেন।

বিবৃতিতে জানানো হয়,সংবাদ প্রকাশের জেরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ সাংবাদিক নেতা মানিক রায়হান বাপ্পিকে গ্রেফতার ও কারাগারে পাঠানোয় তীব্র নিন্দা জ্ঞ্যাপন করেন তারা। ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার ইতিহাসে এই প্রথম কোনো সাংবাদিককে পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য কারাবরণ করতে হলো। এর মাধ্যমে ক্যাম্পাস সাংবাদিকতার ইতিহাসে একটি কালো অধ্যায় রচিত হয়েছে বলে জানান তারা।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন এখন একটা গোষ্ঠীর হাতিয়ার হয়ে উঠেছে। স্বাধীন মত প্রকাশে সাংবাদিকদের গলা চেপে ধরতে একটি গোষ্ঠী আজ সক্রিয়। যারা গণমাধ্যমবিরোধী ও মতপ্রকাশের স্বাধীনতাবিরোধী তারা এই আইনের যথেচ্ছ ব্যবহার করছে। তাদের উদ্দেশ্য হলো সাংবাদিকদের হয়রানি করা ও ভয়ভীতি দেখানো এবং দূর্নীতির খবর প্রকাশে বাধা দেয়া। আমরা অবিলম্বে এই বিতর্কিত আইন বাতিল ও গ্রেফতারকৃতদের মুক্তি চাই।

আরো পড়ুন: চবির আটকে থাকা পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত

জানা যায়, ‘রাবির আবাসিক শিক্ষকের বিরুদ্ধে হলে সিট বাণিজ্যের অভিযোগ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের জেরে ২০১৫ সালে ২৪ অক্টোবর যুগান্তরসহ ১৬টি পত্রিকার বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা দায়ের করেন রাবির শহীদ সোহরাওয়ার্দী হলের তৎকালীন আবাসিক শিক্ষক ও কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের কাজী জাহিদুর রহমান। ওই মামলায় গত ১৩ নভেম্বর মানিক রায়হান বাপ্পিকে পুলিশ গ্রেফতার করে পরদিন ১৪ নভেম্বর আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠায়।

ইত্তেফাক/এএইচপি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত