ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের আনাগোনা, বেড়েছে চুরির ঘটনা

ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের আনাগোনা, বেড়েছে চুরির ঘটনা
ক্যাম্পাসে ঢুকে পড়ছে বহিরাগত এক ব্যক্তি। ছবি: ইত্তেফাক

করোনা প্রেক্ষাপটে দেশের অন্যান্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো প্রায় এক বছর ধরে বন্ধ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি)। বন্ধ ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের পদচারণা কম থাকলেও বহিরাগত লোকজনের আনাগোনা বেড়েছে। যখন-তখনই ক্যাম্পাসে ঢুকে পড়ছে বহিরাগতরা। সেই সঙ্গে বেড়েছে চুরির ঘটনা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার সাদ্দাম হোসেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী নাহিদ নূর তার (২১৭ নম্বর) কক্ষে গিয়ে দেখে তার কক্ষ এবং ভেতরে আলমারি ও ট্রাংকের তালা ভাঙা। সেখান থেকে তার জামা-কাপড়, দুইটি রাইস কুকার ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র চুরি হয়েছে।

সম্প্রতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের রবীন্দ্র-নজরুল কলা ভবনের পাশে রাখা নির্মাণ সামগ্রী চুরি করতে এলে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা হিমেল (১৪) নামে এক কিশোরকে আটক করে। এছাড়াও কয়েকমাস আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শেখ রাসেল হল থেকে সাবমারসিবল পাম্প এবং বেশ কিছুদিন আগে দুই ভ্যান টাইলস ও আট কার্টন ক্যাবল চুরি হয়। সেই সঙ্গে জিয়াউর রহমান হলের ১২০ নম্বর কক্ষের বেলকনির গ্রিল কেটেও চুরি হয়।

বহিরাগতরা মূলত, ঘাস কাটা, কাগজ কুড়ানো এবং বিভিন্ন হকারি কাজের অজুহাতে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে ক্যাম্পাসে প্রবেশের জন্য প্রধান ফটক বাদে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল, লালন শাহ হল সংলগ্ন দুটি পকেট গেট এবং থানা গেট রয়েছে। এর মধ্যে প্রধান ফটকের নিরাপত্তায় আনসার সদস্যরা থাকলেও অন্য তিন গেটে কোনো নিরাপত্তা কর্মী থাকে না। ফলে ওই তিন গেট দিয়ে প্রতিনিয়তই বহিরাগতরা প্রবেশ করে। এর মধ্যে লালন শাহ হলের পকেট গেট বন্ধ করে দিলেও সেখানে অস্থায়ী মই লাগিয়ে চলে বহিরাগতদের অবাধ বিচরণ। ধারণা করা হচ্ছে, এ তিন গেট থেকেই চুরি করে নিরাপদে প্রস্থান করে তারা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, বহিরাগত প্রবেশ বন্ধে আগামী শনিবার থেকে ক্যাম্পাসে মাইকিং করা হবে। যারা কনস্ট্রাকশনে কাজ করে তাদের প্রধান প্রকৌশলীর মাধ্যমে পরিচয়পত্র দেওয়া হবে। আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করবো।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শেখ আবদুস সালাম দৈনিক ইত্তেফাককে বলেন, বিষয়গুলো নিয়ে ইতোমধ্যে আমরা বসেছি। প্রক্টর মহোদয়কে এ বিষয়ে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x