সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে উল্টাপাল্টা লিখলেই ব্যবস্থা

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে উল্টাপাল্টা লিখলেই ব্যবস্থা
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। ছবি: ইত্তেফাক

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত লকডাউন শিথিল করে গণপরিবহন, দূরপাল্লার বাস ও দোকানপাট-শপিংমল খুললেও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে বিরুপ কোনো মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে লিখলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আনোয়ার বেগমের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপিতে বলা হয়েছে ‘বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হতে পারে’ এমন কিছু ‘সামাজিকমাধ্যমে’ না লেখার জন্য একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে।

No description available.

বুধবার (০৯ জুন) এ বিষয়ে অধ্যাপক আনোয়ারা বেগম গণমাধ্যমকে বলেন, এটি কোনো নিষেধাজ্ঞা নয়। অনেক সময় বিভাগের শিক্ষার্থীরা আবেগপ্রবণ হয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অনেক কিছু লিখে থাকে। এতে বিভাগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়। তাই একটি সতর্কতামূলক বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, শিক্ষার্থীরা তাদের ভোগান্তি নিয়ে লিখতে পারবে না এটি বাকস্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ। কারণ গত চার মাসেও স্নাতকের রেজাল্ট প্রকাশ করা হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় কোন অনুগত দাস তৈরির কারখানা নয়।

চবিতে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি: একদিনে আবেদন ১৪ হাজার

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতার গণমাধ্যমকে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে এমন কোনো মন্তব্য শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখবে তা হতে পারে না। আমি বিজ্ঞপ্তিটি সমর্থন করি। বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কে কোনো শিক্ষার্থী যদি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উল্টাপাল্টা কিছু লেখেন তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইত্তেফাক/এসসেড

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x