‘আজ বেঁচে গেছি কিন্তু কাল কী হবে’

‘আজ বেঁচে গেছি কিন্তু কাল কী হবে’
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়। ছবি: ইত্তেফাক

রাতে বাসায় ফিরতে গিয়ে নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ জুনিয়র ছাত্র দ্বারা হেনস্তার শিকার হয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দুই ছাত্রী। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাতে কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে অভিযুক্ত একজনকে আটক করেন প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা। আটক জুনায়েদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের আরবি বিভাগের ছাত্র। তার দেওয়া তথ্যমতে বাকি তিনজন হলেন একই শিক্ষাবর্ষের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের রুবেল, দর্শন বিভাগের ইমন এবং রাজু।

শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেন ভুক্তভোগীদের একজন। তিনি ঘটনার বিবরণ দিয়ে বলেন, ‘নিজ ক্যাম্পাসে নিরাপদ থাকতে চাওয়াও কি খুব বড় চাওয়া? আজ বেঁচে গেছি কিন্তু কাল কী হবে!’

জানা যায়, শহর থেকে ব্যক্তিগত কাজ শেষে ভুক্তভোগী দুইজন শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসের দুই নাম্বার গেইট সংলগ্ন বাসায় যাচ্ছিলেন। সোহরাওয়ার্দী মোড় পার হয়ে সেন্ট্রাল মসজিদের কাছাকাছি যেতেই ৪ জন ছাত্র তাদের পথ আটকে জেরা শুরু করে। শিক্ষার্থীরা তখন তাদের পরিচয় দিলেও অভিযুক্তরা নানারকম থ্রেট দেওয়া শুরু করে। এমনকি অভিযুক্তদের মধ্যে লুঙ্গি পরিহিত একজন হাঁটু পর্যন্ত লুঙ্গি উঠিয়ে অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করে এবং ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের গায়ের দিকে বারবার তেড়ে যায়। ঠিক তখন ওই রাস্তা দিয়ে প্রক্টরের গাড়ি যেতে দেখে শিক্ষার্থীরা চিৎকার করে উঠে এবং প্রক্টররা গাড়ি থামিয়ে তাদের উদ্ধার করেন এবং অভিযুক্ত একজনকে আটক করেন। বাকিরা দৌড়ে পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া জানান, এ ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে একজন কে আটক করা হয়। ভুক্তভোগীদের লিখিত অভিযোগ দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। পাশাপাশি আটককৃতের তথ্য অনুসারে বাকিদেরকেও আটক করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ইত্তেফাক/এমএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x