ঢাকা সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬
৩০ °সে


বাধা দিয়ে উন্নয়ন কাজ থামানো যাবে না: জাবি উপাচার্য

বাধা দিয়ে উন্নয়ন কাজ থামানো যাবে না: জাবি উপাচার্য
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়।ছবি-সংগৃহীত

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) চলমান অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ বাধা দিয়ে থামানো যাবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম। শুক্রবার একান্ত সাক্ষাতকারে ইত্তেফাককে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালের ২৩ অক্টোবর জাবির অধিকরতর উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেয় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ (একনেক)। এর পর থেকেই উত্তপ্ত হতে থাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনৈতিক অবস্থা। সর্বশেষ গত এপ্রিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আমরা প্রকল্পের কাজ শুরু করি। এর ধারাবাহিকতায় ৩০ জুন ছেলেদের তিনটি ও মেয়েদের দুটি হলের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করি। কিন্তু এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় আমাদের ক্যাম্পাসের অনেক গাছ কেটে ফেলতে হতে পারে।’

উন্নয়ন কাজ চলমান রাখার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘প্রাকৃতিক পরিবেশের কথা বিবেচনা করেই মহাপরিকল্পনা করা হয়েছে। হয় উন্নয়ন কাজ চলমান রাখবো। অথবা চেয়ার ছেড়ে দিয়ে চলে যাব।’

সম্প্রতি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের প্রথম ধাপের পাঁচটি হল নির্মাণের কাজের উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম।

এরপর ‘জাবির হল নির্মাণে ১১৩২টি গাছ কাটা পড়বে’ শিরোনামে জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে আন্দোলনে নামে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের শিক্ষার্থীরা। তাদের সঙ্গে সংহতি জানায় বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন জাবি সংসদ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জাবি শাখা ও বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।

পরে প্রাকৃতিক পরিবেশ ধ্বংস করে হল নির্মাণের প্রতিবাদে আন্দোলন করে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ঐক্যমঞ্চ। এর প্রেক্ষিতে গত বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট হলে অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের মহাপরিকল্পনা প্রদর্শন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রদর্শন শেষে মহাপরিকল্পনা সম্পর্কে আলোচনা-সমালোচনা করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। সেসময় এক শিক্ষকের ‘অসংলগ্ন’ আচরণে আলোচনা বন্ধ করে দেয় প্রশাসন।

এদিকে আগামী সপ্তাহে জাকসুর নির্বাচন কমিশন গঠন করা হবে বলেও জানান উপাচার্য। তিনি বলেন, রেজিস্ট্রার গ্রাজুয়েট নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছিলাম। সেটা বাস্তবায়ন করেছি। জাকসু নির্বাচনের ঘোষণা যখন দিয়েছি সেটাও বাস্তবায়ন করবো। জাকসুর নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য ইতোমধ্যে আমরা প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। ২৬ তারিখের মধ্যে জাকসুর নির্বাচন কমিশন গঠন করা হবে।

উপাচার্য আরো বলেন, ‘অধিকাংশ বিভাগেরই কিছু শিক্ষক নিয়মিত ক্লাস-পরীক্ষা নেন না। তোমরা কেন তাদের নিয়ে প্রতিবেদন লেখো না? বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থেই এসব বিষয় তুলে ধরা প্রয়োজন। তাই এসব বিষয় তোমাদের লেখনিতে তুলে ধরার আহ্বান জানাচ্ছি।’

ইত্তেফাক/আরকেজি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২৬ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন