টাকা চাওয়ায় দোকানিকে ঢাবি ছাত্রলীগ নেতার মারধর

প্রকাশ : ০৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:১৫ | অনলাইন সংস্করণ

  বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার

ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের এক দোকানিকে মারধর করেছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সায়েম মোহাম্মদ সানাউল্লাহ। বিশ্ববিদ্যালয়ে এডওয়ার্ড সায়েম নামেও পরিচিত তিনি। তিনি ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভনের অনুসারী। আজ শুক্রবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী দোকানদারের নাম আজগর।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সকালে দোকানে যান সায়েম। এ সময় দোকানদার সায়েমের কাছ থেকে পূর্বের পাওনা টাকা চাইলে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন সায়েম এবং অশালীন ভাষায় গালি দেন। এ সময় দোকান মালিক আজগর গালির প্রতিবাদ করলে ৫ মিনিটের মধ্যে দোকান বন্ধের আল্টিমেটাম দেন সায়েম। কিন্তু তা না করায় মারধর শুরু করেন ছাত্রলীগের এই নেতা।

বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে মালিক আজগর ইত্তেফাককে বলেন, ‘সায়েম ভাই প্রতিদিনেই কোনো কারণ ছাড়া গালাগালি করে। গালাগালি করার জন্য আমার দোকানের কর্মচারীরা থাকে না।'

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আজ সকালে তিনি দোকানে এসে গালাগালি শুরু করেন। কেন গালাগালি করলেন, তা আমি জানিনা। আমি ভাইকে বলেছি ভাই গালাগালি কইরেন না। গালাগালির জন্য আমার লোক থাকে না। তখন সায়েম ভাই আমাকে বলল, তুই থাকবি। কেউ না থাকলেও তুই থাকবি। পরে, আমি বলেছি, এভাবে গালাগালি করলে তো দোকান চালাতে পারব না। তখন সে (সায়েম) আমাকে বলে, ‘তোর দোকান চালাতে হবে না, তুই চলে যা’। পাঁচ মিনিটের মধ্যে দোকান বন্ধ করে ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে যাবি। কিন্তু তখন আমি কাজ করছিলাম। এর ঠিক পাঁচ মিনিট পরই আমাকে ভেতর রেখেই দোকান বন্ধ করতে শুরু করল সে। আমি বললাম, ভাই কী করছেন? এটা বলতেই সে আমাকে মারধর শুরু করে।'
বিষয়টি জানতে অভিযুক্ত সায়েমকে বেশ কয়েকবার ফোন দিলেও তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়। 

হলের শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, সায়েমসহ বেশ কয়েকজন ছাত্রনেতার এমন আচরণের কারণে দোকানগুলোর কর্মচারীরা বেশিদিন থাকে না। এর আগে এই ছাত্রনেতার বিরুদ্ধে পলাশীতে মারধর, শহীদ মিনারে সাংবাদিকের মোবাইল ভাংচুরসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগ ওঠে। ফুলার রোডে বসা ছেলে-মেয়ের মোবাইল ও বাইক আটকে চাঁদাবাজির অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
এ বিষয়ে এসএম হলের ভিপি (সহ-সভাপতি) মোজাহিদ কামাল বলেন, বিষয়টা আমি শুনেছি। এ সম্পর্কে খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে। 

আরও পড়ুন: শার্শায় সেই গৃহবধূ ধর্ষণের মামলা পিবিআইতে, ব্যক্তির দায় নেবে না সংস্থা

হল প্রভোস্ট মাহবুবুল আলম জোয়ার্দার বলেন, সকালে এমন একটি ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তে আমরা একটা তদন্ত কমিটি গঠন করবো। পরে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানা যাবে।

ইত্তেফাক/কেকে