বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির পদত্যাগ দাবিতে অনশন

প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:৪৬ | অনলাইন সংস্করণ

  বশেমুরবিপ্রবি সংবাদদাতা

ভিসির পদত্যাগ দাবিতে শিক্ষার্থীদের অনশ্যন। ছবি-সংগৃহীত

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) ভিসি অধ্যাপক ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিনের পদত্যাগের দাবিতে আমরণ অনশনে বসেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বুধবার রাত থেকে আন্দোলন শুরুর পর আজ দুপুর থেকে প্রশাসনিক ভবনের সামনে তারা এই অনশন কর্মসূচি শুরু করে।

অনশনরত শিক্ষার্থীরা ভিসির কুশপুত্তলিকা তৈরি করে তা প্রদর্শন করে এবং বিভিন্ন শ্লোগান দিয়ে অনশন চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে তেমন কোন সাড়া পাচ্ছে না তারা। তবে তাদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন গতকাল রাতে ১৪টি বিষয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আন্দোলন বন্ধ করতে চেয়েছিল। কিন্তু আমাদের এক দফা এক দাবি ‘ভিসির পদত্যাগ’।

অনশনকারী শিক্ষার্থী শামীম রেজা বলেন, জাতির পিতার জন্মভূমিতে তার নামাঙ্কিত বিশ্ববিদ্যালয়ে আমরা কোনো দুর্নীতিগ্রস্থ ভিসি দেখতে চাই না। নিয়োগ দুর্নীতি, ভর্তি দুর্নীতি, চাকরি দেওয়ার নামে নারী কেলেঙ্কারিসহ মোট ২০টি কারণে আমরা তার পদত্যাগ চাই। ভিসি পদত্যাগ না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলেও জানান শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন : সৌদির তেলখনিতে আঘাত হানে ১৮টি ড্রোন ও ৭টি ক্ষেপণাস্ত্র

এদিকে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন বন্ধ করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের সমর্থিত কিছু শিক্ষার্থী দ্বারা আন্দোলনকারীদের হুমকি-ধমকি দেয়ার অভিযোগ আসছে। শিক্ষার্থীরা জানান, যাতে করে আন্দোলনকারীরা বাড়ি চলে যায় তার জন্য গোপালগঞ্জের বাইরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বাস সার্ভিস আজ ফ্রি ঘোষণা করা হয়েছে। এসময় শিক্ষকরা আন্দোলনকারীদের বাড়ি চলে যেতে চাপ প্রয়োগ করছে বলেও অভিযোগ করেছেন একাধিক শিক্ষার্থী।

এ বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আশিকুজ্জামান ভুঁইয়ার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করে হলে তার মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এদিকে শিক্ষার্থীদের সকল ন্যায্য দাবির সাথে সংহতি প্রকাশ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সচেতন শিক্ষক সমাজ তাদের অবস্থান নিশ্চিত করে ১৬টি দাবি তুলে ধরেন। এর মধ্যে অন্যতম শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে শতভাগ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা, বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ক্ষেত্রে বাক স্বাধীনতা নিশ্চিত করা, স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষার ফর্মের দাম কমানো, বিদেশি শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে মেধা যাচাই করা ইত্যাদি।

ইত্তেফাক/কেআই