‘রিকশাওয়ালা জানতো না তার গুনগুন করা গানের স্রষ্টা বসে আছে সামনের রিকশায়’

‘রিকশাওয়ালা জানতো না তার গুনগুন করা গানের স্রষ্টা বসে আছে সামনের রিকশায়’
222949:1

দির্ঘ্য ১০ বছর পর ‘বন্ধু’ শিরোনামে নতুন গান তৈরি করেছেন আরমান খান। এটি গেয়েছেন তিনি নিজেই। এবারই প্রথম তার গাওয়া গান প্রকাশ হলো। এই গানের কথা, সুর ও সংগীত সবই তার। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৭টায় ইউটিউবে জি সিরিজ মিউজিক চ্যানেলে এসেছে গানটি। একইদিন দৈনিক ইত্তেফাকের অনলাইন ইনচার্জ জনি হকের সঞ্চালনায় ইত্তেফাক অনলাইনের নিয়মিত আয়োজন ‘টুনাইট শো লাইভ’-এ হাজির হন তিনি। এসময় দীর্ঘবিরতি, নতুন গান এবং ব্যক্তিজীবনের নানান বিষয় শেয়ার করেন আরমান খান।

আরমান খানের কথায়, ‘একদিন রাজধানীর বাংলামোটরে সিগনালে রিকশায় বসে আছি। আমার রিকশার পেছনে আরেকটি রিকশা এসে ধাক্কা দেয়। এই সময় রিকশাচালক হঠাৎ করে গেয়ে উঠলেন, ‘দন্তন্য না মূর্ধন্য-কোনটা আসল মন’। অথচ তিনি কিন্তু জানেন না তার রিকশায় যে বসে আছে সেই গানের গীতিকার, সুরকার ও কম্পোজার আরমান খান। এটি একটি মজার বিষয় ছিলো।’

সংগীত জগতের ক্যারিয়ারে ২৬টি অ্যালবামে কাজ করেছেন আরমান খান। এই অ্যালবামগুলোর মধ্যে তার সব থেকে প্রিয় তিনটি অ্যালবাম সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমি প্রথমেই রাখবো ‘দিওনা পরানে যাতনা’ অ্যালবাম। এটি আমার সবথেকে প্রিয়। ২০১০ সালে বের হওয়া এই অ্যালবামটি ভালো চলেনি। এটা অনেক গভীর একটি অ্যালবাম। এইটি আমার জীবনের মাইলফলক। ৬০ এর দশকের আদলে তৈরি করা এই অ্যালবামের প্রত্যেকটি গানের মধ্যে কোন না কোন অর্থ আছে। এই গানগুলো শুনি কলকাতা থেকে সুভ্রদেবের কাছে অনেকই চিঠিতে লিখেছেন- এই গানগুলো কি আসলেই আরমান খানের লেখা নাকি রবীন্দ্রনাথ ঠাকারের? সুবীর নন্দী অ্যালবামটির ভক্ত ছিলেন। দ্বিতীয়ত- হাসানের ‘তিন সত্যি’। এই অ্যালবামের জন্য আমি নিবেদিতভাবে কাজ করেছি। ‘তিন সত্যি ছিলো আমার জীবনের একটা গভীর আসক্তি থেকে করা। এই অ্যালবামের জন্য আমি অনেক কষ্ট করেছি। আমার মনে মাধুরী মিশিয়ে আমি সেটি করেছি। এই অ্যালবামের প্রত্যেকটি গান এখনো মানুষের মুখে মুখে ঘোরে। তৃতীয় অ্যালবামটি হলো ‘দোকান’। এই অ্যালবামের প্রথম গান ‘চান্দের বাত্তির কসম দিয়া’সহ সবগুলো গান অসাধারণ।”

এমন কোন শিল্পী আছে যাদের সঙ্গে কাজ করা হয়নি এমন প্রশ্নে উত্তরে তিনি বলেন, ‘প্রিয় শিল্পী বলতে গেলে আমি দুইজনের কথা বলবো যাদের সাথে আমার কাজ করা হয়নি। প্রথমজন হলেন রুনা লায়লা। ওনার কণ্ঠে আমার কোন গান হয়নি। ওনার সাথে একটা গান করতে পারলে ভালো লাগতো। দ্বিতীয়তজন হলেন মাকসুদুল হক। তিনি আমার প্রিয় একজন ব্যক্তি কিন্তু তার সাথেও আমার কোনো গান গাওয়া হয়নি। এছাড়া সাফিন আহমেদও আমার খুব প্রিয় কিন্তু তার সাথে আমার গান করা হয়নি।কিছু গান আমার মাথায় আছে। সেগুলো ভবিষ্যতে করার ইচ্ছে আছে।’

প্রমিথিউস ব্যান্ডের বিপ্লবের গাওয়া ‘চান্দের বাত্তির কসম দিয়া’, আর্ক ব্যান্ডের হাসানের কণ্ঠে ‘শীত নয় গ্রীষ্ম নয় এসেছে বসন্ত’, ‘লাল বন্ধু নীল বন্ধু’, মমতাজের ‘নান্টু ঘটক’ গানগুলোর সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন আরমান খান।

ইত্তেফাক/বিএএফ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x