ধর্ষকের বিরুদ্ধে জনমত গঠন করবেন মেহজাবিন!

ধর্ষকের বিরুদ্ধে জনমত গঠন করবেন মেহজাবিন!
অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী। ছবি: সংগৃহীত

ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী। অভিনয়ে পুরোদস্তুর ব্যস্ত তিনি। একের পর এক ভালো ভালো গল্পের নাটকে অভিনয় করে যাচ্ছেন। এবার তাকে দেখা যাবে যমজ চরিত্রে। নারী দিবস উপলক্ষে আসছে তার নাটক ‘কনক চাঁপা’। শামীম সিকদারের রচনায় ‘কনক চাঁপা’ নাটকটি পরিচালনা করেছেন সঞ্জয় সমদ্দার।

নাটকের মফস্বল শহরের রইচ মাস্টারের যমজ মেয়ে কনক ও চাঁপা। দেখতে একই রকম হলেও তাদের স্বভাব, পছন্দ ও আচরণ সম্পূর্ণ ভিন্ন। এমনকি পোশাক পরিচ্ছদেও। কনক চুলে বব কাট দেয়, জিন্স ও টিশার্ট পরিধান করে, মার্শাল আর্ট শেখে, জিম করে, বাইসাইকেলে করে চলাফেরা করে, সাথে সবসময় ব্লেড ও সেফটিপিন রাখে সেল্ফ ডিফেন্সের জন্য। বাজে ছেলেদের নোংরা আচরণের প্রতিবাদ করে সে। প্রয়োজন হলে গায়ে হাত তুলতেও দ্বিধা করে না। তাকে কোনো বখাটে উত্ত্যক্ত তো দূরের কথা সামনে এসে কথা বলারও সাহস পায় না। সামাজের অনেকেই তার পোশাক-আশাক ও চলাফেরা নিয়ে নানান কথা বলে। অন্যদিকে চাপা ভদ্র,শান্তশিষ্ট ও চাপা স্বভাবের একটি মেয়ে। ঠিক ওর নামের মতোই। চুল বেনি করে রাখে, থ্রিপিস পরিধান করে, মাথা নিচু করে চলাফেরা করে। সবকিছু মেনে ও মানিয়ে নিয়ে সবার কাছে ভালো মেয়ে হয়ে থাকার বিশাল একটা প্রবণতা সমসময় কাজ করের তার মধ্যে।

চেয়ারম্যানের বখাটে ছেলে আনোয়ার প্রতিনিয়ত তাকে বিরক্ত করে, জোর করে যেখানে-সেখানে পথ আগলে প্রেমের প্রস্তাব ও বাজে ইঙ্গিত দেয়, ব্যাড টাচ্ করার চেষ্টা করে। অতিষ্ঠ করে তোলে তার জীবন। কিন্তু চাপা এর কোনো প্রতিবাদ তো করেই না, বরং সবকিছু মেনে নিয়ে কনকের কাছেও গোপন রাখে। বাবা-মাকে বলে তাদেরকেও টেনশন দিতে চায় না সে। একদিন রিপার কাছ থেকে শুনে আনোয়ারকে হুশিয়ার করে কনক। এরপর থেকে বেশ কিছুদিন চাপাকে আর বিরক্ত করার সাহস পায় না আনোয়ার। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য বাবাকে সাথে নিয়ে কনক ঢাকায় গেলে সমাজের চোখে ভদ্র ও ভালো মেয়ে চাপাকে একা পেয়ে আনোয়ার ও তার বন্ধুরা তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করে।

থানায় মামলা হলে তদন্তকারী অফিসার সাব-ইন্সপেক্টর হাসিব আসামিদের গ্রেফতার করার জন্য হন্যে হয়ে খুঁজে বেড়ায়। চেয়ারম্যান ঘটনাটাকে অন্যভাবে ঘুরানোর জন্য এলাকায় সালিশের মাধ্যমে জনমত গঠন করে ভিকটিমকে দোষারোপ করার চেষ্টা করে, পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে মীমাংসা করে ধামাচাপা দেয়ার জন্য।

রইচ মাস্টারের কাছে তার ছেলের সাথে চাপার বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে যায়। এমনকি তাকে থ্রেট দেয় মামলা তুলে নেয়ার জন্য। চেয়ারম্যান ও তার ছেলের কুকর্ম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে তুলে ধরে কনক। তোলপাড় হয় ইলেকট্রিক ও প্রেস মিডিয়ায়। ধর্ষকের বিরুদ্ধে জনমত গঠন হয়, মানববন্ধ হয়। গ্রেফতার হয় আনোয়ারসহ সকল আসামি। কোনো আইনজীবীই দাঁড়ায় না তার পক্ষে। এর কিছুদিন পর দেখা যায় হাতে চেইন নিয়ে কয়েকটা বখাটেকে ধাওয়া করছে চাপা। এমনই গল্প নিয়ে নির্মাণ হবে ‘কনক চাঁপা’।

নারী দিবস উপলক্ষে ৮ মার্চ সোমবার রাত ৮টায় নাটকটি আরটিভিতে প্রচার হবে।

ইত্তেফাক/বিএএফ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x