তাহসান-তিশার ‘টোনাটুনির ভালোবাসা’

তাহসান-তিশার ‘টোনাটুনির ভালোবাসা’
তাহসান খান ও তানজিন তিশা। ছবি: সংগৃহীত

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষ্যে গুণী নির্মাতা সাগর জাহান নির্মাণ করলেন ‘টোনাটুনির ভালোবাসা’। তাহসান খান এবং তানজিন তিশা অভিনীত এই বিশেষ নাটকটি প্রচারিত হবে পহেলা বৈশাখ ১৪ এপ্রিল (বুধবার) রাত ১০টায় আরটিভিতে।

নাটকটির গল্পে দেখা যাবে- আবির (তাহসান) পায়ে ফ্রেকচার নিয়েঘরে বসা আজকে প্রায় তিন মাস। আর যেন ঘরে মন টেকেনা। কিন্তু কুয়াশা (তানজিন তিশা) কোন ভাবেই ডাক্তারের কথা মতো তিন মাস রেস্ট ছাড়া আবিরকে ছাড়বে না। শেষ কয়টা দিন ঘরে আটকানোর জন্য কুয়াশা আরো কঠিন হয়। আর তারা কি ভাবে চলবে সেটার একটা লিস্ট করে। এবং সাথে একটা গেইম খেলে আবিরকে ব্যাস্ত থাকার ব্যবস্থা করে কুয়াশা। যে গেইমটা একজন আরেকজনকে এমন প্রশ্ন করবে যেটা আবির কুয়াশার অজানা। সেই না জানা উত্তর জানতে গিয়ে তাদের ব্যাক্তিগত জীবনের জটিল বিষয় বের হয়ে আসে।

ক্লাশ সেভেন এইটের দিকে কারো কারো একটা টিনেজ প্রেম হয়.. যেটা ইমমেচুয়ূর্ট প্রেম.. যে প্রেমটা টেকেও না বেশীর ভাগ সময়.. তেমন একটা প্রেম কুয়াশার হয়। যেটা স্কুল লাইফে দুই পরিবার জানাজানির মধ্যে দিয়ে শেষ হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু প্রবলেম হচ্ছে অনেক বছর পর মানে যেদিন কুয়াশার হলুদ সেদিন সেই স্কুল লাইফের প্রেমিক তারেক কুয়াশাকে ফোন দেয়। বিয়ের দিনও ফোন দেয়। ফোন দিয়ে শুধু তারেক বলে সে এখনও তাকে ভালবাসে আর বিয়ে করতে প্রস্তত। তাই কুয়াশাকে বিয়ে না করে তার কাছে চলে আসতে বলে। কিন্তু ততক্ষনে অনেক দেরী হয়ে যায়। কুয়াশারও বিয়ে হয়ে যায়।

বিয়ের পরেও তারেক ফোন দিত, আর কুয়াশাও কথা বলত আবিরকে না জানিয়ে। একটা অন্য রকম ভালবাসা শুরু হয় কুয়াশা আর তারেকের। কিন্তু যখন কুয়াশা বুঝতে পারে বিষয়টা ঠিক হচ্ছে না তখন কুয়াশা সরে আসার চেষ্টা করে। এই সত্য গোপন কথাটাই বলে। আর সেই সত্যই কাল হয়ে দাঁড়ায়। যদিও গল্পে এক সময় আবিরও একটা কথা বলে যেটা কুয়াশা জানত না, মেনে নিতে কষ্ট হয়। এই জানা জানির শেষ কোথায় দেখতে হলে নাটকের শেষ পর্যন্ত দেখতে হবে...।

ইত্তেফাক/বিএএফ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x