‘আলীবাবা ও চালিচার’ এবং গৃহিণী জ্যোতি

‘আলীবাবা ও চালিচার’ এবং গৃহিণী জ্যোতি
জ্যোতিকা জ্যোতি। ছবি: সংগৃহীত

অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি নতুন খবর জানালেন। অনিমেষ আইচ পরিচালিত ‘আলিবাবা ও চালিচার’ নামের একটি বিশেষ টেলিফিল্মে অভিনয় করলেন তিনি। এতে তাকে দেখা যাবে একজন গৃহিণীর চরিত্রে।

ঢাকা ও গাজীপুরে টেলিফিল্মটির চিত্রায়ন হয়েছে। এতে আরও অভিনয় করেছেন অভিনেতা-পরিচালক ইশতিয়াক আহমেদ রুমেল ও নূর ইমরান মিঠু। পরিচালক হিসেবেও তাদের পরিচিতি আছে। তাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে রসিকতার সুরে জ্যোতিকা জ্যোতি লিখেছেন, ‘যে হারে ডিরেক্টররা নায়ক হওয়া শুরু করসে, আর্টিস্টদের ভাত সংকট শুরু হবে!’

নতুন কাজ প্রসঙ্গে জ্যোতি ইত্তেফাক অনলাইনকে বলেন, ‘সাহিত্য অবলম্বনে একটি টেলিফিল্মে গৃহিণীর চরিত্রে অভিনয় করেছি। মেয়েটির নাম লাবণী। পুরো গল্পে অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক আবহ রয়েছে। এতে ধনী-গরিব দুই শ্রেণির দুটি পরিবারের গল্প পাওয়া যাবে। মনে হচ্ছে, দর্শকরা আমাকে অন্যরকমভাবে পাবে।’

আসন্ন ঈদ উপলক্ষে ‘আলিবাবা ও চালিচার’ প্রযোজনা করছে বঙ্গ বিডি।

এদিকে অভিনয়ের পাশাপাশি কৃষিতে সফলতার ছাপ রাখছেন জ্যোতিকা জ্যোতি। রাসায়নিক ও বিষমুক্ত খাদ্যপণ্য তৈরি হচ্ছে তার ‘খনা অর্গানিক’ খামারে। সম্প্রতি ইত্তেফাক অনলাইনের ‘টুনাইট শো’তে তিনি বলেন, ‘গাছ-পালা, কৃষির দিকে আমার ভীষণ টান। আমাদের বাড়ির পাশে একটা বিরাট জঙ্গল ছিলো। একবার মনে হলো এই জঙ্গলটা শুধু শুধু পড়ে থাকবে কেনো। এখানে কিছু একটা করা যেতেই পারে। প্রথমে বাড়ির আশেপাশে ফল-ঔষধি গাছ রোপণ করি। এরপর পাড়ার কিছু ছেলে-মেয়ের আগ্রহে পরিষ্কার করা জায়গার খামার করার কথা ভাবি। সে অনুযায়ী আমরা দেশি মুরগির খামার ও সবজি চাষ শুরু করি।’

জ্যোতি আরও বলেন, ‘আমি একটি নদী লিজ নিয়েছি। নদীটি ব্রক্ষপুত্রের একটি শাখা নদী। এটি কচুরিপানা দিয়ে একদম ভরা ছিলো। আমি এটা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে আগের অবস্থানে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চাই। সেজন্য প্রশাসন অনেক সহযোগিতা করছে।’

এদিকে আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন জ্যোতিকা জ্যোতি।

ইত্তেফাক/বিএএফ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x