নজিরবিহীন ভুল করে স্বর্ণ পাম জয়ী ছবির নাম ঘোষণা!

নজিরবিহীন ভুল করে স্বর্ণ পাম জয়ী ছবির নাম ঘোষণা!
কান উৎসবের সমাপনী মঞ্চে স্পাইক লি

এ কী করলেন স্পাইক লি! পুরো উত্তেজনা নিমেষে মাটি করে দিলেন। অন্যান্য পুরস্কার প্রদানের আগেই তিনি স্বর্ণ পাম জয়ী ছবির নাম ঘোষণা করায় রোমাঞ্চকর আনন্দটা মাটি হয়ে গেছে!

পালে দে ফেস্টিভাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে শনিবার (১৭ জুলাই) কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭৪তম আসরের সমাপনী দিনের এই ঘটনা নজিরবিহীন।

সাধারণত সেরা অভিনেতা, সেরা অভিনেত্রী, গ্রাঁ প্রিঁ, জুরি প্রাইজ, সেরা চিত্রনাট্যকার পুরস্কারগুলো দেওয়ার পর সবশেষে স্বর্ণ পাম জয়ী ছবির নাম ঘোষণা করেন মূল বিচারকদের প্রধান। কিন্তু স্পাইক লি শুরুর দিকেই সেই গোপন তথ্য জানিয়ে দেন! তার মুখ থেকে বেরিয়ে আসে, ফরাসি নারী পরিচালক জুলিয়া দুকুরনোর ‘তিতান’ এই সম্মান জিতেছে। তখন অন্য বিচারকরা হতভম্ব হয়ে তাকে ঘোষণা ফিরিয়ে নেওয়ার ইঙ্গিত দেন। তারা ও সঞ্চালক দোরিয়া তিলিয়ের মিলে উত্তেজনা ফিরিয়ে আনতে গোটা অনুষ্ঠানে চেষ্টা করেছেন।

ভুল করে জয়ী ঘোষণা করা জুলিয়া দুকুরনোর ‘তিতান’ই স্বর্ণ পাম জিতেছে। এর মধ্য দিয়ে ২৮ বছর পর নারী পরিচালকের হাতে স্বর্ণ পাম উঠলো। পুরস্কারটি তুলে দেন অভিনেত্রী শ্যারন স্টোন। তিনি মঞ্চে আসার আগে আরেকবার স্বর্ণ পাম জয়ী ছবির নাম জানাতে গিয়ে হযবরল করে ফেলছিলেন স্পাইক লি! সঞ্চালক দৌড়ে এসে তাকে থামিয়ে শ্যারন স্টোনকে মঞ্চে ডাকেন। ভুলের ঘটনা আর এসব মুহূর্ত দেখে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে হাসির রোল পড়ে গিয়েছিলো।

১ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ব্যাপ্তির ‘তিতান’ ছবির গল্প এক সিরিয়াল কিলারকে ঘিরে। এতে মাদক ও যৌনতার ছড়াছড়িতে সমালোচকরা বিভক্ত হয়ে গিয়েছিলেন। কেউ কেউ নতুনধারার নির্মাণের প্রশংসা করলেও বোদ্ধাদের অনেকে উগ্রতা ও নোংরামির কারণে ছবিটির সমালোচনা করেছেন।

করোনা মহামারির কারণে ফরাসি উপকূলে দুই বছরেরও বেশি সময় পর আবার দেখা গেছে কানের জৌলুস। বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ এই চলচ্চিত্র উৎসবে কোন ছবি স্বর্ণ পাম জিতবে তা অনুমান করা যায় না সহজে। কারণ বিচাররকরা বরাবরই উল্টো পথে হাঁটেন এবং বড় চমক দেখান। এবারও ব্যতিক্রম হয়নি।

এবার মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে স্বর্ণ পামের জন্য মনোনীত হয় ২৪টি ছবি। সেগুলোর মধ্যে ‘তিতান’কে সমালোচকরা বলা যায় গোনাতেই ধরেননি! কিন্তু কানের বিচারকরা প্রতিবারই চমক জাগানিয়া রায় দেন। স্পাইক লি’র নেতৃত্বে বিচারক প্যানেলে ছিলেন চার নারী। ফলে এবার একজন নারী নির্মাতার স্বর্ণ পাম জয়ের আশা দেখেছেন অনেকে। সেটি পূরণ হলো।

কানের ইতিহাসে ১৯৯৩ সালে নিউজিল্যান্ডের জেন ক্যাম্পিয়ন ‘দ্য পিয়ানো’ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার নারী পরিচালক হিসেবে স্বর্ণ পাম জিতেছিলেন। সেই বিরল তালিকায় যুক্ত হলো জুলিয়া দুকুরনোর নাম।

কানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার গ্র্যাঁ প্রিঁ যৌথভাবে জিতেছে ইরানের আসগর ফারহাদির ‘অ্যা হিরো’ এবং ফিনল্যান্ডের ইওহো কুয়োসমানের ‘কম্পার্টমেন্ট নম্বর সিক্স’। সেরা পরিচালক হয়েছেন এবারের উদ্বোধনী চলচ্চিত্র ‘আনেট’-এর নির্মাতা লিও ক্যারাক্স।

জুরি প্রাইজ ভাগাভাগি করেছে ইসরায়েলের নাদাভ লাপিড পরিচালিত “আহেদ’স নি” এবং থাইল্যান্ডের অ্যাপিচ্যাটপঙ বিরাসেতাকুলের ‘মেমোরিয়া’।

সেরা অভিনেতা হয়েছেন ‘নিট্রাম’ ছবির ক্যালেব লান্ড্রি জোন্স। সেরা অভিনেত্রী স্বীকৃতি পেয়েছেন নরওয়ে রেনোত রাইনসভে (দ্য ওর্স্ট পারসন ইন দ্য ওয়ার্ল্ড)।

সেরা চিত্রনাট্যকার হয়েছেন ‘ড্রাইভ মাই কার’ ছবির জন্য জাপানের রিয়ুসুকে হামাগুচি ও তাকামাসা ওয়ে। সম্মানসূচক পাম দ’র দেওয়া হয়েছে আমেরিকান অভিনেত্রী-পরিচালক জোডি ফস্টার ও ইতালিয়ান পরিচালক মার্কো বেলোচ্চিওকে।

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবির স্বর্ণ পাম জিতেছে হংকংয়ের ই ট্যাঙ পরিচালিত ‘অল দ্য ক্রোস ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’। এছাড়া স্পেশাল মেনশন পেয়েছে ব্রাজিলের জেসমিন টেনুচ্চির ‘অগাস্ট স্কাই’।

গত ৬ জুলাই কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭৪তম আসরের পর্দা ওঠে। এবারের আয়োজনের অফিসিয়াল পোস্টারে মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের সভাপতি স্পাইক লি’কে সম্মান জানানো হয়েছে। ১২ দিনের এই উৎসবকে ঘিরে নতুন সব ছবি ও নানান আয়োজনে মুখর ছিলো দক্ষিণ ফরাসি উপকূলীয় শহর কান।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x