ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬
৩২ °সে


অক্ষয়ের বাণিজ্যিক ছবির প্রচারে শীর্ষ সরকারি সংস্থা!

অক্ষয়ের বাণিজ্যিক ছবির প্রচারে শীর্ষ সরকারি সংস্থা!
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও অভিনেতা অক্ষয় কুমার। ছবি: সংগৃহীত

অনস্ক্রিন হোক কি অফ-স্ক্রিন সিনেপ্রেমীদের তাক লাগাতে অক্ষয় কুমারের জুড়ি নেই! খিলাড়ির খোলস ছেড়ে এখন তিনি ‘ভারতকুমার’। ‘প্যাডম্যান’, ‘টয়লেট: এক প্রেম কথা’, এয়ারলিফ্ট, রুস্তম, বেবি-র মতো ছবিই বলছে সে কথা। এবার ভারতকুমার সিলভারস্ক্রিনে আনছেন দেশের মহাকাশ সাফল্যের কাহিনী।

পরবর্তী ছবি ‘মিশন মঙ্গল’-এ মহাকাশ বিজ্ঞানীর ভূমিকায় দেখা যাবে অক্ষয়কে। তার ছবির শুভেচ্ছা কামনা করে টুইট করলো ইসরো। তবে বিতর্ক এড়াতে পারলেন না অক্ষয়। ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থার বিরুদ্ধে বলিউডের একটি বাণিজ্যিক ছবিকে প্রচারের অভিযোগ উঠেছে।

ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো টুইটারে লিখেছে, ‘ইসরোর টিম যে অনুভূতি ও আবেগের সঙ্গে কাজ করে ‘মিশন মঙ্গল’-এর ট্রেলারে তার প্রতিফলন ঘটেছে। চন্দ্রযান ২-এর লঞ্চের প্রস্তুতি চলছে ইসরোয়। মিশন মঙ্গলের জন্য অক্ষয়কে শুভেচ্ছা।’

আরো পড়ুন: ৪০ লাখ টাকা ঘুষের মামলায় ডিআইজি মিজান গ্রেফতার

এভাবে একটি ছবিকে প্রোমোট করছে দেশের শীর্ষ সরকারি সংস্থা, তা ভালো চোখে দেখছেন না অনেকেই।

নেটিজেনদের একাংশ মনে করছে, মিশন মঙ্গল অভিযান নিয়ে ছবি করেছেন অক্ষয় কুমার। কিন্তু সেটা তো সম্পূর্ণ বাণিজ্যিক কারণে। দেশভক্তির আবেগে দর্শক টানাই লক্ষ্য নির্মাতাদের। সেখানে সরকারি সংস্থা বিনামূল্যে ছবির প্রচার করে দিল।

১৫ অগস্ট মুক্তি পাবে ‘মিশন মঙ্গল’ ছবি। ইতিমধ্যেই প্রকাশ্যে এসেছে ছবির ট্রেলার। ২০১৩ সালে প্রথম পদক্ষেপেই সফল হয়েছিল ইসরোর মঙ্গল অভিযান। সেই কাহিনিই উঠে আসবে অক্ষয় কুমার, বিদ্যা বালান, তাপসী পন্নু, সোনাক্ষী সিনহা অভিনীত ‘মিশন মঙ্গল-এ। ছবিটির পরিচালনা করেছেন জগন শক্তি।

ইত্তেফাক/বিএএফ

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২০ আগস্ট, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন