চট্টগ্রামে মিললো নতুন প্রজাতির ব্যাঙ

চট্টগ্রামে মিললো নতুন প্রজাতির ব্যাঙ
ছবি: ইত্তেফাক

চট্টগ্রামের চুনাতি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য আরও একটি নতুন প্রজাতির ব্যাঙয়ের দেখা মিলেছে। এই ব্যাঙ প্রজাতিটি ফ্রাইনোগ্লোসাস বর্গের। এর শারীরিক গঠন পি. মার্টেনসির প্রজাতির কাছাকাছি। তবে কিছু পার্থক্যও রয়েছে। এই নতুন প্রজাতির বৈজ্ঞানিক নাম দেওয়া হয়েছে- ফ্রাইনোগ্লোসাস সোয়ানবরনোরাম।

নতুন প্রজাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য এ ব্যাঙের শারীরিক পরিমাপ, মলিকুলার বিশ্লেষণের পাশাপাশি ডাকের বিশ্লেষণও করেছেন, যা অন্য ব্যাঙদের থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন। চট্টগ্রামের নাম অনুসারে ও গর্তবাসী হওয়ায় এই ব্যাঙের নামকরণ করা হয়েছে ‘গাতা ব্যাঙ’। নতুন আবিষ্কৃত এই প্রজাতির অস্তিত্ব হুমকির মুখে। উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও কৃষি সম্প্রসারণ এবং ব্যাপক ভিত্তিক কীটনাশক ব্যবহারের কারণে এই প্রজাতি এখন হুমকির মুখে রয়েছে।

ক্রিয়েটিভ কনজার্ভেশন অ্যালায়েন্স ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রাণীবিদ্যা বিভাগের যৌথ গবেষণায় নতুন প্রজাতির এই ব্যাঙ আবিষ্কার হয়। দুই প্রতিষ্ঠানের রিসার্চ অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে ছিলেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আসাদুজ্জামান, শিক্ষার্থী মারজান মারিয়া, গবেষক হাসান আল রাজি, ফাহিমুজ্জামান নোবেল, শাহরিয়ার সিজার রহমান ও স্কট ট্র্যাগেসার।

জানা যায়, ২০১৯ সালের জুন মাসে চট্টগ্রাম বিভাগের চুনাতি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য থেকে তারা এই ব্যাঙের নমুনা সংগ্রহ করেন। গবেষণায় ব্যাঙকে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করে বুঝতে পারেন যে, এটা আমাদের পরিচিত ব্যাঙয়ের চেয়ে কিছুটা আলাদা। তারপর তারা এটি নিয়ে বিস্তর গবেষণা করেন এবং নিশ্চিত এটি পুরো বিশ্বে নতুন প্রজাতির ব্যাঙ। পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রের পিআর জে জার্নালে তাদের গবেষণা প্রতিবেদন জমা দেন। ছয় মাস রিভিউ করার পর তারা এটির অনুমোদন দেয়। এই গবেষণাটি ক্রিয়েটিভ কনজারভেশন অ্যালাইন্সের সহায়তায় ১৯ আগস্ট প্রকাশ পায়।

গবেষক হাসান আল রাজী বলেন, নতুন প্রজাতির এই ব্যাঙটি আমাদের তৃতীয় আবিষ্কার। নতুন কিছু আবিষ্কারের মাধ্যমে বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করাটা আমাদের জন্য অনেক আনন্দদায়ক। আমরা বিশ্বকে নতুন কিছু উপহার দিতে কাজ করে যাব সব সময়। তিনি বলেন, গবেষণার জন্য বন্য পরিবেশের দিকে আমাদের নজর দিতে হবে। বর্তমান সময়ে বন্যপ্রাণীরা অনেক সময় মানুষের হাতে নির্যাতনের শিকার হয়ে থাকে। সুতরাং পরিবেশ রক্ষায় আমাদের আরও সোচ্চার হতে হবে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x