ঠাণ্ডায় স্বস্তি দেবে মধু-পেঁয়াজের সিরাপ

ঠাণ্ডায় স্বস্তি দেবে মধু-পেঁয়াজের সিরাপ
মধু-পেঁয়াজের সিরাপ। ছবি: সংগৃহীত

এবারের ঠাণ্ডা যেনো যেতেই চাইছে না। বাইরে কিংবা ঘরের ভেতরে, ঠাণ্ডা লেগেই আছে। আর সেই সাথে ঠাণ্ডা জনিত রোগের কমতি নেই। অল্প একটু বাতাসেই নাক দিয়ে পানি পরা সহ সর্দি কাশি লেগেই থাকছে। তবে এ সকল ছোট সমস্যায় মুক্তি দিতে পারে ঘরে তৈরি কিছু জিনিস। শুধু তাই নয়, স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারি। তাদের মধ্যেই মধু এবং পেঁয়াজ দিয়ে তৈরি সিরাপটির গুনাগুণের কথা না বললেই নয়।

মধু এবং পেঁয়াজ দিয়ে তৈরি এ সিরাপটি ঠাণ্ডা জনিত রোগের জন্য উপশমি। মিশ্রণটি তৈরি করতে হবে একটি বড় পেঁয়াজ কে ছোট ছোট করে কেটে নিয়ে। পর্যাপ্ত পরিমাণ মধু দিয়ে অল্প আঁচে কয়েক ঘণ্টা জ্বাল করতে হবে। তবে, জ্বাল করতে না চাইলে পেঁয়াজ পাতলা টুকরো করে কেটে একটি কাচের বোতলে মধু দিয়ে সারাদিন ভিজিয়ে রাখতে হবে।

সিরাপটি ঠাণ্ডা লাগলে প্রতিবেলা ২ চামচ করে খেতে হবে।

ঘরোয়াভাবে পেঁয়াজ বহুকাল ধরে নানা কাজে ব্যাবহার হয়ে আসছে। পেঁয়াজে উপস্থিত অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য শরীরে বিভিন্ন ইনফেকশনের সাথে লড়াই করে। এতে আরও রয়েছে অ্যালকনাইল সিস্টাইন সালফক্সাইডস, দুটি রাসায়নিক গ্রুপ যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসাবে কাজ করে।

সাধারন ঠাণ্ডা জ্বরে ভাইরাসের কারণে নাকে এবং গলাতে প্রদাহজনক প্রতিক্রিয়া হয়। পেঁয়াজে ফ্ল্যাভোনয়েড কোরেসটিন রয়েছে, যা শুধুই অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হিসেবে নয় বরং অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি এজেন্ট হিসেবেও কাজ করে। তখন সর্দির লক্ষণ কমতে থাকে এবং শরীর সুস্থতার দিকে যেতে থাকে।

সর্দির চিকিৎসায় মধুর নাম সবার আগেই থাকে। সর্দি জ্বর সাড়াতে ঘরোয়া এই উপাদানের কোনো বিকল্প নেই। খাটি মধুতে রয়েছে অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল সক্রিয়তা। এ সব ছাড়াও বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে মধুতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং বিরোধী প্রদাহজনক বৈশিষ্ট্য; যা একত্রে হৃৎপিণ্ডঘটিত অসুস্থতা এবং অন্যান্য রোগের মধ্যে ক্যান্সারের সাথে লড়াই করতে সক্ষম।

ইত্তেফাক/এনএসএন

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x