রংপুরের হাসপাতালগুলোতে কমছে না দালালের উৎপাত

রংপুরের হাসপাতালগুলোতে কমছে না দালালের উৎপাত
রংপুর: রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগ —ইত্তেফাক

দালালদের উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন রোগীরা। রংপুরের বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে গত এক বছরে দালালচক্রের দুই শতাধিক সদস্যকে গ্রেফতার করা হলেও তাদের উৎপাত কমছে না বলে অভিযোগ রোগীদের।

তারা বলছেন, চিকিৎসা নিতে কোনো হাসপাতালের সামনে আসতেই দালালরা ঘিরে ধরছে রোগীদের। কম খরচ ও ভালো চিকিৎসার কথা বলে নিয়ে যায় বিভিন্ন ডাক্তারের চেম্বার, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে। এতে কাঙ্ক্ষিত সেবা থেকে বঞ্চিত হওয়ার পাশাপাশি অতিরিক্ত অর্থ খরচ হয়ে যাচ্ছে।

ঠাকুরগাঁওয়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার ভাউলিয়াগঞ্জ এলাকার হাসিনা আক্তার হ্যাপি বলেন, গ্যাস্ট্রোলজি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দেখাতে এসেছিলেন তিনি। রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মোড়ে গাড়ি থেকে নামলে কয়েক জন তাকে ভালো চিকিৎসকের কথা বলে একটা চেম্বারে নিয়ে যায়। বিভিন্ন পরীক্ষা শেষে তারা খরচ নেয় প্রায় ৮ হাজার টাকা। পরীক্ষার প্রতিবেদন নিয়ে চিকিৎসকের কাছে গেলে তিনি কিছু ওষুধ লিখে দেন। পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারি, দালালরা আমাকে যার কাছে নিয়ে গেছিল তিনি ভালো চিকিৎসক না।

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার বাবু মিয়া নামে পরিচয় দিয়ে বলেন, তার বাবা ও মা ডায়াবেটিসসহ বিভিন্ন রোগে ভুগছেন। তাদের রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। দালালচক্র বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ছাড়পত্র ছাড়াই রোগীদের অন্যত্র নিয়ে যায়। এভাবে প্রতারিত হয়েছেন আমার বাবা-মা।

রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক রেজাউল করিম জানান, রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালকে দালালমুক্ত করার জন্য যা যা করা দরকার তার জন্য সব ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার উত্তম প্রসাদ পাঠক বলেন, চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা দালালদের মাধ্যমে প্রতারিত হচ্ছেন। গত বছর থেকে এখন পর্যন্ত রংপুরের বিভিন্ন হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে ২০০ শতাধিক দালালকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শুধু গত মাসেই গ্রেফতার করা হয়েছে ৫৬ জনকে। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হয়েছে। সম্পূর্ণ দালালমুক্ত করণে পুলিশের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

ইত্তেফাক/এমআর

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x