বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা সোমবার, ১০ আগস্ট ২০২০, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭
৩৪ °সে

করোনাকালের দিনপঞ্জি-৮

করোনা আমাদের সব আানন্দ থামিয়ে দিল : এ.কে.এম রিদওয়ান হাসান

চলছে এক অদৃশ্য শত্রুর বিরুদ্ধে টিকে থাকার লড়াই। এই লড়াইয়ে বড়োদের পাশাপাশি ছোটরাও নানাভাবে যুক্ত। স্কুল বন্ধ থাকলেও অনলাইনে চলছে ক্লাস, পরীক্ষা আর বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা। সেইসঙ্গে সুস্থ থাকার জন্য সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ছোটদের কেউ কেউ ভিডিও বার্তার মাধ্যমে সবাইকে জানাচ্ছে কীভাবে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। ঘরে থাকার এই সময়ে কেউ ছবি আঁকছে, কেউ গান করছে, কেউ নাচ করছে, আবার কেউ গল্পের বই পড়ে বা খেলাধুলা করে সময় কাটাচ্ছে। এ পর্বে দিনযাপনের কথা লিখে পাঠিয়েছে আমাদের ছোট্ট বন্ধু এ.কে.এম রিদওয়ান হাসান । শুনে নিই তার করোনার দিনগুলোর গল্প—
করোনা আমাদের সব আানন্দ থামিয়ে দিল : এ.কে.এম রিদওয়ান হাসান
রিদওয়ান হাসান ও তার ছোট বোন রায়তা

আমার নাম এ.কে.এম রিদওয়ান হাসান। আমার একমাত্র বোন রায়তা। আমরা ঢাকায় থাকি। আমি দ্বিতীয় শ্রেণিতে আর আমার বোন প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। করোনা (কোভিড-১৯) নামক এক অদৃশ্য ভইরাসের কারণে আমাদের স্কুল এখন ছুটি। আমরা এখন ঘরেই খেলা করি। অমরা সারাক্ষণ মা-বাবাকে কাছে পেয়ে খুব খুশি।

আমাদের বাসার পাঁচ তলায় আমার বন্ধু নাবিল থাকে। আমি প্রতিদিন তার সাথে খেলা করতাম। এখন করোনার ভয়ে মা আমাকে ঘরের বাইরে বেরুতে দিচ্ছে না। তাই আমি আর নাবিল এখন বারান্দা দিয়ে কথা বলি, আর ঘুড়ি উড়াই, আকাশে কারো ঘুড়ি উড়তে দেখলে আমার খুব কান্না পায়, মনে হয় আমি যদি বাইরে যেয়ে ঘুড়ি উড়াতে পারতাম।

আমার নানাবড়ি গাজীপুর। ওখানে আমার একটা লাল টুকটুকে বাইসাইকেল আছে। লকডাউনের কারণে আমি ওখানে যেতে পারছি না, সাইকেলও চালাতে পারছি না। এই করোনা আমাদের সব আানন্দ থামিয়ে দিল।

দ্বিতীয় শ্রেণি, ধানমন্ডি গভ:বয়েজ হাই স্কুল, ঢাকা

লেখা পাঠানোর ঠিকানা : [email protected]

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত