ডাবল চিন, ভারী গাল থেকে মুক্তির উপায় 

ডাবল চিন, ভারী গাল থেকে মুক্তির উপায় 
প্রতীকী ছবি। মডেল: জেনি। ছবি: মোহসীন আহমেদ কাওছার 

ফোলা ফোলা গাল, মুখের বেবি ফ্যাট ছোট্টটি থাকতে যতোই মিষ্টি লাগুক না কেন, প্রাপ্তবয়সে কিন্তু মোটেই ভালো লাগে না বরং সময়ে-অসময়ে অস্বস্তিকর ঠেকে। আবার চিবুক বা থুতনির নিচে চামড়ার আরেক পরত দেখা যায়। যাকে আমরা ডাবল চিন নামেই জানি। ডাবল চিন নিয়ে অনেকেই বিব্রত থাকেন।

মুখে অতিরিক্ত মেদ জমলে পুরো চেহারা নষ্ট হয়ে যায়। চিবুকের নিচের অংশ ভারী হলে দেখতে যেমন খারাপ লাগে, তেমনি মুখ বয়স্কও দেখায়। মেকআপ আর কায়দা করে পোশাক পরে ডাবল চিন কিছুটা আড়াল করা গেলেও তা মোটেও স্থায়ী কোনো সমাধান নয়। তাই মুখের বাড়তি ফ্যাট কমানোর দিকে মনোযোগ দিতে হবে। হালকা কিছু মুখের ব্যায়াম করে মুখের পেশিগুলো টোন করা সম্ভব, জেনে নিন ডাবন চিন, ভারী গাল থেকে মুক্তি পেতে কী কী ব্যায়াম করবেন।

প্রয়োজনীয় ব্যায়াম

  • ঠোঁট চেপে বন্ধ করে রাখুন। এবং সে অবস্থায় হাসার চেষ্টা করুন। এতে গালের পেশি উপর দিকে উঠে যাবে। এবার দুই হাতের আঙুল দিয়ে গাল উপর দিকে টেনে ধরে রাখুন ২০ সেকেন্ডের জন্য, তারপর ছেড়ে দিন। এভাবে পর পর পাঁচবার করুন।
  • মুখ বন্ধ রেখে গাল ফোলান। যতোটা সম্ভব বাতাস ভরে নিন দুই গালে। এবার এই অবস্থায় ৪৫ সেকেন্ড রেখে ধীরে ধীরে বাতাস ছেড়ে দিন। পর পর কয়েকবার করার চেষ্টা করবেন।
  • মুখের উপরের তালুতে জিভ চেপে ধরে থাকুন। এবার মাথা উপরের দিকে তুলে মুখ খুলে হাসার চেষ্টা করুন এবং একই সঙ্গে ঢোক গেলার চেষ্টা করুন। এর ফলে গলার উপরে চিবুকের নিচের অংশে টান পড়বে, গলা আর চিবুকের পেশি টোনড হবে।

  • মুখ বন্ধ রাখুন। এবার জিভটাকে মুখের ভেতরে গোল করে একপাশ থেকে অন্যপাশে ঘোরান। দশবার ডানপাশ থেকে বাঁ পাশে আর দশবার বাঁ পাশ থেকে ডানে ঘোরালে একটি সেট সম্পূর্ণ হবে।
  • মুখ বন্ধ করে গাল দুটি ভেতর দিকে টেনে ধরে থাকুন। ধীরে ধীরে দশ গুনে ছেড়ে দিন। এভাবে অন্তত পাঁচবার করার চেষ্টা করুন।
  • মুখ চেপে বন্ধ করে রাখুন। এবার নিচের ঠোঁটটাকে ঠেলে উপরের দিকে তোলার চেষ্টা করুন, সঙ্গে চিবুকও উঠবে। যতোটা সম্ভব উঁচু করার চেষ্টা করুন।

ঘরোয়া টিপস

তরমুজ ও আপেল: তরমুজের বিভিন্ন উপাদান ত্বকের রঙ স্বাভাবিক রাখতে এবং চামড়া ঝুলে যাওয়া থেকে রক্ষা করে। প্রতিদিন তরমুজের রস চিনে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলতে হবে। যদি সমপরিমাণ তরমুজ ও আপেলের রস একসঙ্গে মিশিয়ে ব্যবহার করা হয় তবে আরো ভালো কাজ করবে।

কোকো বাটার: কোকো বাটারের তেল গরম করে চিবুকের নিচের অংশে লাগাতে হবে। রাতে ঘুমানোর আগে কয়েক মিনিট চিবুকে মালিশ করুন। পরদিন গোসল করার আগে একই পদ্ধতি অনুসরণ করুন, দেখবেন উপকার পাচ্ছেন।

পাতলা বালিশ ব্যবহার করুন: সাধারণত উঁচু বালিশে মাথা রেখে ঘুমালে ত্বকে টান পড়ে। এতে ত্বক ঝুলে ডাবল চিন হওয়ার আশঙ্কা বেড়ে যায়। তাই ঘুমানোর জন্য নরম ও পাতলা বালিশ ব্যবহার করুন।

ইত্তেফাক/আরএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x