মোবাইল ফোন ব্যবহারে স্মৃতিশক্তি কী হ্রাস পায়!

মোবাইল ফোন ব্যবহারে স্মৃতিশক্তি কী হ্রাস পায়!
ছবি: শেহতাজ শরীফ ও রজত রায়

মনোবিজ্ঞানীরা দীর্ঘকাল ধরে বলে আসছেন যে, মানসিক চাপ অ্যামনেসিয়া বা স্মৃতিশক্তিহীনতার অন্যতম কারণ। তবে এটিই একমাত্র কারণ নয়। মোবাইল ফোনের অতিরিক্ত ব্যবহার মস্তিষ্কে নতুন তথ্য ধরে রাখতে এবং নতুন স্মৃতি গঠনের ক্ষমতাকে ক্ষতিগ্রস্থ করতে পারে। আমাদের মস্তিষ্ক ডেটা ধরে রাখার জন্য প্রযুক্তির উপর ক্রমশ নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে। যার ফলে মনে রাখার ক্ষমতাটিও দ্রুত হারাচ্ছে।

মনযোগহীনতা স্মৃতি গঠনের অন্যতম অন্তরায়। আমরা আমাদের স্মার্টফোনগুলোতে একই সাথে একাধিক অ্যাপ্লিকেশনে বিভিন্ন তথ্য সন্ধান করি। এর ফলে আমাদের মনোযোগ বিক্ষিপ্ত হয়ে যায়। এর কারণে তথ্যগুলো দীর্ঘমেয়াদী স্মৃতিতে আমাদের মস্তিষ্কে সঞ্চয় হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না।

স্মার্টফোনের আসক্তি ঘুমেও বাধা সৃষ্টি করে। মস্তিষ্ককে বিশুদ্ধকরণ করতে গভীর ঘুম দরকার। কেবলমাত্র একজন যখন গভীর ঘুমে থাকে তখনই মস্তিষ্ক অপ্রয়োজনীয় পুরানো তথ্য ছাঁটাই করে নতুন তথ্যের জন্য জায়গা তৈরি করে। যখন ঘুম বাধাপ্রাপ্ত হয় নতুন তথ্য ধরে রাখার এবং নতুন স্মৃতি গঠনের ক্ষমতা ক্ষতিগ্রস্থ হয়। লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইকিয়াট্রি ইনস্টিটিউট- এর এক তথ্য অনুযায়ী কেবল ঘুম নয়, মোবাইলের ব্যবহার আমাদের আইকিউকেও উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করে।

সুইস ট্রপিকাল অ্যান্ড পাবলিক হেলথ ইনস্টিটিউটের (সুইস টিপিএইচ) গবেষকদের এক সাম্প্রতিক গবেষণায় প্রকাশিত হয়েছে, মোবাইল ডিভাইসগুলো কিশোর-কিশোরীদের স্মৃতিশক্তিতেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। চিত্রযুক্ত স্মৃতি, যা মানুষকে ছবি, নিদর্শন এবং আকার বোঝাতে সহায়তা করে এবং যা সংরক্ষিত থাকে মস্তিষ্কের ডানদিকে। এই স্মৃতিরও হ্রাস ঘটে অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারের ফলে। তাই, কিশোর-কিশোরীরা, যারা ডান কানের পাশে ফোন রেখে কথা বলেন তাদের ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার সম্ভবনা সব থেকে বেশি।

ডিজিটাল স্মৃতিশক্তিহীনতা কাটিয়ে উঠতে, রাতে আপনার মোবাইল ফোনটি বিছানায় রাখবেন না তা নিশ্চিত করুন। ঘুমানোর আগে এই ধরনের কোন ডিভাইস আপনার দৃষ্টির বাইরে রাখুন। সপ্তাহে কমপক্ষে একদিন স্ক্রিনমুক্ত দিন নির্বাচন করুন। এই দিনটিতে কল করা বা গ্রহণ করা ছাড়া অন্য কোনো কিছুর জন্য ফোন ব্যবহার এড়াতে চেষ্টা করুন। কল করার সময় হেডফোন বা লাউড স্পিকার ব্যবহার করে মস্তিষ্কের সম্ভাব্য ঝুঁকিগুলি হ্রাস করা যায়, বিশেষ করে যখন নেটওয়ার্কের গুণমান কম থাকে।

ইত্তেফাক/আইডি/আরএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x