ওজন কমাতে স্ন্যাক্স খাওয়ার বিষয়ে সচেতন থাকুন  

ওজন কমাতে স্ন্যাক্স খাওয়ার বিষয়ে সচেতন থাকুন  
ছবি: শেহতাজ শরীফ ও মোমেন্টস্

ওজন কমানো মোটেও সহজ কাজ নয়। নিয়মিত শরীরচর্চা, জীবনযাপন ও খাদ্যাভাসে পরিবর্তনই শুধু নয়, দিনের পর দিন ডায়েট করে যেতে হবে সুষম পুষ্টিকর খাবার খাওয়া মাধ্যমে। তবে মাঝে মাঝে অনেকেই অতিরিক্ত স্ন্যাক্স খাওয়ার ফলে, প্রকৃত ডায়েট অনুসরণ করতে পারেন না। এতে ওজন তো কমেই না, উল্টো বেড়ে যেতে পারে। তাই খাবার নির্বাচনে সচেতন হতে হবে।

অতিরিক্ত পুষ্টিকর খাবার নয়

ওজন কমানোর সময়টাতে অধিকাংশই পুষ্টিকর স্ন্যাক্স বেছে নেন। এবং এটাই হওয়া উচিত। কিন্তু অনেকেই মনে করেন এই পুষ্টিকর স্ন্যাক্স বেশি বেশি করে খাওয়া উচিত। এটাই ভুল ধারণা। অতিরিক্ত সালাদ, দুই-তিন বেলাতে বাদাম ভর্তি বাটি, মোটেও স্বাস্থ্যকর কিছু হবে না। নিশ্চিত থাকুন যে অতিরিক্ত স্ন্যাক্স হবে ক্ষতির কারণ।

জাঙ্ক ফুডকে না বলুন

উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার জাঙ্ক ফুড বা স্ন্যাক্স খাওয়ার লোভ কমাতে হবে। কোন কোন স্ন্যাক্স দেখলেই খেতে ইচ্ছে করে বা মনে মনে সেই স্ন্যাক্স খেতে চান, তার একটি তালিকা তৈরি করে নিন। যখনই কিছু খেতে ইচ্ছে করবে, সেটা নোটবুকে লিখে ফেলুন। মনোবিদরা মনে করেন, অনেক সময় মনের ইচ্ছা লিখে প্রকাশ করলে, সাময়িকভাবে সেটার প্রতি আকর্ষণ কমে যায়। আর যখনই জাঙ্ক ফুড খেতে ইচ্ছে করবে তখন স্ন্যাক্সের বিকল্প কিছু একটা খেয়ে নেবেন, যা পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যের জন্য উপকারি।

তিন বেলা খাবরে সচেতন থাকুন

সকালের নাস্তা, দুপুরের লাঞ্চ এবং রাতের ডিনারে কী কী খাবেন তার তালিকা করে নিন। তবে, লাঞ্চ এবং ডিনারের মাঝে স্ন্যাক্স অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এটা খিদে কমিয়ে দেয়। বিকেলে যদি স্ন্যাকস খান তাহলে আর ডিনারে বেশি খাবার খাওয়ার প্রয়োজন পড়বে না। সেই সঙ্গে নিউট্রিশন পেয়ে যাবে আপনার শরীর। স্ন্যাক্স এমন পছন্দ করবেন যাতে প্রোটিন, ফ্যাট বা ফাইবার থাকবে। এই উপাদান সমৃদ্ধ খাবার হজম হতে সময় নেয়। ফলে অনেকক্ষণ খিদে পাবে না। দিনে দুইবার স্ন্যাক্স খেতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন ২০০ ক্যালরির বেশি যেনো না হয় কোনো স্ন্যাক্স। তবে তেলে ভাজা ও চিনিযুক্ত স্ন্যাক্স এড়িয়ে চলুন।

স্ন্যাক্স কেমন হতে পারে

স্বাস্থ্যকর, ওয়েট লস ফ্রেন্ডলি স্ন্যাক্স খাওয়া চেষ্টা করুন। বাদাম মিক্সড, দই, মিক্সড বেরি, আপেল, টমেটো, ছোলা, ডিম, সালাদ, এমনকি অল্প করে পপকর্নও খেতে পারেন। ডায়েটে অনেক কিছু নিষেধ থাকতেই পারে। কিন্তু জানতে হবে ওজন কমাতে কোন খাবারটা আপনার বেশি প্রয়োজন এবয় কোন কোন খবার আপনাকে পুষ্টি এনে দিবে।

ইত্তেফাক/আরএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x