ভোটাররা ঘুম থেকে ওঠে না,  তাই ভোট ৯টায় শুরু 

ভোটাররা ঘুম থেকে ওঠে না,  তাই ভোট ৯টায় শুরু 
নির্বাচন কমিশনের সিনিয়র সচিব মো.আলমগীর। ফাইল ছবি 

ভোটারদের ঘুম থেকে উঠতে দেরি হয় বলে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনে (চসিক) সাধারণ নির্বাচন ও শূন্য ঘোষিত বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ সকাল ৮টার পরিবর্তে ৯টায় শুরু করা হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সিনিয়র সচিব মো.আলমগীর।

রবিবার বিকেলে আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে এসব নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সচিব একথা বলেন।

ভোট ৮টা থেকে ৪টার পরিবর্তে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত কেনো? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, ৮টায় ঘুম থেকে উঠে না। এ জন্য ভোটারদের সুবিধার্থে ভোটগ্রহণ সকাল ৯টা থেকে ৫টা করা হয়েছে। সকালে ভোট হলে ভোটার উপস্থিতি কম দেখি। এটা বেলা বাড়ার সাথে সাথে ভোটার উপস্থিতি বাড়ে এ জন্য কমিশন এটা ৮টা থেকে ৯টা করেছে।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভোটাররা কাদের দোষে ভোটকেন্দ্রে যান নাই, যারা যান নাই এটা তাদেরকে জিজ্ঞেস করেন। তারাই ভালো বলতে পারবেন।

আরো পড়ুন : জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ টেস্ট দল ঘোষণা

ইভিএমে ভোট দেয়ার ক্ষেত্রে সহায়তাকারী হিসেবে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের এজেন্টরা ভোট দেয়ার গোপন কক্ষে অবস্থান করেছে। এটা প্রতিরোধে এবার কী ধরনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে? জানতে চাইলে সচিব বলেন, এই ধরনের কাজ করার সুযোগ নাই। নির্বাচন করা একক কারও দায়িত্ব নয়। এটার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশন, যারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন সেসব প্রার্থী, তাদের সমর্থক, ভোটার, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সবার সমন্বিত দায়িত্ব। সবাই যদি যার যার দায়িত্ব পালন করেন, তাহলে এই ধরনের ঘটনা ঘটার সুযোগ নাই।

এই ধরণের ঘটনা ঘটলে দায়টা কার উপরে পড়বে? এমন প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, যদি সেখানে প্রত্যেক প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট থাকে, তাহলে সেখানে কোনো সুযোগ থাকবে না। কমিশনের পক্ষ থেকে যেটা করা সেটা হলো-পোলিং অফিসার দেয়া, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য রাখা, প্রিজাইডিং অফিসার রাখা। কিন্তু যারা নির্বাচন করবেন তারা যেনো তাদের পোলিং এজেন্ট দেন।

ইত্তেফাক/ইউবি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত