বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭
২৮ °সে

করোনাকালীনও স্বাস্থ্যখাতের সকল সেবা অব্যাহত রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনাকালীনও স্বাস্থ্যখাতের সকল সেবা অব্যাহত রাখতে হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী
স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ছবি: সংগৃহীত

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক এমপি বলেছেন, ‘গোটা বিশ্বে করোনার তাণ্ডব চলছে। এর কোন ভ্যাক্সিন ও ঔষধ এখনো বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করতে সক্ষম হননি।কিন্তু তাই বলে করোনার বাইরেও মানুষের অন্যান্য রোগব্যাধি তো থেমে থাকবে না।কাজেই মহামারী যতই বৃহৎ আকারে থাকুক মানুষের স্বাস্থ্যসেবায় কোনরকম ঘাটতি রাখা যাবেনা।দেশের প্রান্তিক অঞ্চল থেকে শুরু করে শহর,গ্রামে সবখানেই এবং স্বাস্থ্যখাতের সকল স্তরে মানুষের স্বাস্থ্যসেবা সমানভাবে অব্যাহত রাখতে হবে।’

শনিবার (১১ জুলাই) সকালে,অনলাইন জুম মিটিং এর মাধ্যমে, ৩১তম বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস উপলক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক,এমপি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী কভিড-১৯ এর মহা দুর্যোগের সময়ে আজকের সকল আয়োজনকে মুজিব বর্ষের তাৎপর্যের উপর উৎসর্গ করে বলেন,"আমাদের অনেক ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও করোনার কারণে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান,জাতির পিতার নামে উদযাপিত মুজিব বর্ষকে ঠিকভাবে পালন করতে পারছি না।তাই আজকের জনসংখ্যা দিবসের সকল কর্মকাণ্ড মুজিব বর্ষের নামেই উৎসর্গ করছি।"

স্বাস্থ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বর্তমানের করোনা ক্লান্তিকালে দেশের প্রায় ১৮ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক ও হাসপাতাল সমুহে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মাঠ পর্যায়ে যে ৫২ হাজার কর্মী নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন সেজন্য তাদের প্রত্যেককে সাধুবাদ জানান ও মানুষের সেবায় প্রত্যেককে আরো নিবেদিত হয়ে কাজ করে যাবার আহবান জানান।

উল্লেখ্য, কোভিড মহামারীর কারণে সরকার দিবসটি ভার্চুয়াল মাধ্যমেই আয়োজন করেন।দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য রাখা হয়েছে "Putting the brakes on Covid-19: how to safeguard the health and rights of women and girls now".যার বাংলা ভাবানুবাদ ঠিক করা হয়েছে-"মহামারী কোভিড-১৯ কে প্রতিরোধ করি,নারী ও কিশোরীর সুস্বাস্থ্যের অধিকার নিশ্চিত করি"।দিবসটি উপলক্ষে জাতীয় পর্যায় হতে উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত সীমিত আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে আলোচনা সভা,প্রেস ব্রিফিং,ক্রোড়পত্র প্রকাশ,পুরষ্কার বিতরণ, আইইসি ম্যাটেরিয়াল প্রণয়ন ও প্রচার করা হয়েছে।দিবসটি উপলক্ষে একটি প্রতিপাদ্য সঙ্গীত ও একটি প্রামাণ্য চিত্রও তৈরি করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে অংশ নেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আব্দুল মান্নান,স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং ইউএনএফপিএ এর দেশীয় প্রতিনিধি Dr. Asa Torkelsson,পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সাহান আরা বানু এনডিসি।অনুষ্ঠানে সুচনা বক্তব্য রাখেন আইইএম শাখার পরিচালক ড. আশরাফুন্নেছা।

ইত্তেফাক/এসআই

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত