বেটা ভার্সন
আজকের পত্রিকাই-পেপার ঢাকা মঙ্গলবার, ০৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭
৩০ °সে

১৪ জেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতির আশঙ্কা

১৪ জেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতির আশঙ্কা
সারা দেশে নদীতে বাড়ছে পানির স্রোত, সেই সঙ্গে ভাঙ্গন। মুন্সিগঞ্জ জেলার দিঘিরপার ইউনিয়নে রবিবার পদ্মার ভাঙ্গনে বিলিন হওয়ার পথে স্থানীয় মসজিদ। ছবি: আব্দুল গনি।

ঢাকাসহ ১৪ জেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি আরো অবনতির আশঙ্কা রয়েছে। তবে দেশের ছয় জেলায় বন্যা পরিস্থিতি উন্নতির সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছয় জেলা হলো- নীলফামারী, লালমনিরহাট, সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, ও রংপুর। বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হওয়ার আশঙ্কায় থাকা অন্য ১৩ জেলা হলো- কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, দিনাজপুর, জামালপুর, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, টাঙ্গাইল, নাটোর, নওগাঁ, ফরিদপুর, মাদারীপুর ও রাজবাড়ি। আজ মঙ্গলবার বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র এ তথ্য জানিয়েছে।

বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র আরো জানায়, ব্রহ্মপুত্র, যমুনা, ও গঙ্গা, পদ্মা নদ-নদীর পানি আগামী ৭২ ঘণ্টা সমতল বৃদ্ধি পেতে পারে। আজ মঙ্গলবার বিকালে যমুনার আরিচা পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। তবে তিস্তা ও ধরলা ও উত্তর পূর্বাঞ্চলের আপার মেঘনা অববাহিকার নদ-নদীসমূহের পানি হ্রাস অব্যাহত থাকতে পারে। গত ২৪ ঘণ্টায় নদ-নদীর ৬৪ পয়েন্টে পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। হ্রাস পেয়েছে ৩৪ পয়েন্টে। অপরিবর্তিত রয়েছে তিন পয়েন্টে। কুড়িগ্রামের ধরলায় ১৪ সেন্টিমিটার, ফুলছড়ির যমুনায় ৩৯ সেন্টিমিটার, বাহাদুরাবাদে ৪২ সেমি, কাজীপুরে ৪১ সেমি, সারিয়াকান্দিতে ৪১ সেমি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার যথাক্রমে ১০২, ১০১, ৯৯, ৬৯ ও ৮৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

এদিকে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে বুধবার সকাল ৯টা পর্যন্ত ঢাকা জেলা বাদে দেশের বিভিন্ন স্থানে বজ্রসহ হালকা, মাঝারি ও ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে। তবে আগামী ৭২ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাত হ্রাস পেতে পারে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের মধ্যে কুড়িগ্রামে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে ১৫৫ মিলিমিটার।

ইত্তেফাক/আরএ

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত