মুশতাকের মৃত্যুতে পশ্চিমা কূটনীতিকদের উদ্বেগ

মুশতাকের মৃত্যুতে পশ্চিমা কূটনীতিকদের উদ্বেগ
মুশতাক আহমেদ। ছবি: সংগৃহীত

কারা হেফাজতে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছেন বাংলাদেশে ১৩টি পশ্চিমা দেশের রাষ্ট্রদূত ও মিশনপ্রধানরা। গতকাল শুক্রবার দেওয়া এক বিবৃতিতে তারা বলেন, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে গত বছরের ৫ মে থেকে মুশতাক আহমেদ কারাবন্দি ছিলেন।

বেশ কয়েক বার তার জামিন আবেদন খারিজ হয়েছে। কারাবন্দি থাকা অবস্থায় তার চিকিত্সা নিয়েও উদ্বেগের কথা উঠে এসেছে। আমরা তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই। আমরা বাংলাদেশ সরকারকে এই ঘটনার দ্রুত ও স্বচ্ছ তদন্তের জন্য পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানাই।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কিছু ধারা ও বাস্তবায়ন নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ অব্যাহত থাকবে। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন অনুসারে মান প্রশ্ন তোলা হবে।

বিবৃতিতে সই করেছেন—বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার, ব্রিটিশ হাইকমিশনার রবার্ট চ্যাটার্টন ডিকসন, সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড, কানাডার হাইকমিশনার বেনোইত প্রিফনটেইন, ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি এসটার্প পিটারসন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনসে তেরিঙ্ক, ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত জ্যঁ-মেরিন সুউহ, জার্মানির রাষ্ট্রদূত পিটার ফাহরেনহোল্টজ, ইতালির রাষ্ট্রদূত এনরিকো নুনজিয়াতো, নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত হ্যারি ভারউইজ, নরওয়ের রাষ্ট্রদূত এসপেন রিকটার-এসভেন্ডসেন, স্পেনের রাষ্ট্রদূত ফ্রান্সিসকো ডা আসিস বেনিটেজ সালাস এবং সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্দ্রা বার্গ ভন লিন্ডে।

এদিকে লেখক মুশতাক আহমেদের কারা হেফাজতে মৃত্যুর ঘটনা দ্রুত, স্বচ্ছ এবং স্বতন্ত্র তদন্তের আহ্বান জানিয়েছে বাক্স্বাধীনতা নিয়ে কাজ করা যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংস্থা কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে)। এছাড়া, কারাবন্দি কার্টুনিস্ট কিশোরের নিঃশর্ত মুক্তির দাবির পাশাপাশি তাকে কারা হেফাজতে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগের তদন্তও চেয়েছে সংস্থাটি। গতকাল শুক্রবার নিউ ইয়র্ক থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে এসব দাবি জানিয়েছে সিপিজে।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x