বিক্ষোভের পর বাংলাদেশিদের এনওসি দিচ্ছে কলকাতার উপ-হাইকমিশন

বিক্ষোভের পর বাংলাদেশিদের এনওসি দিচ্ছে কলকাতার উপ-হাইকমিশন
ফাইল ছবি।

এনওসি না থাকলে ভারত থেকে দেশে ফিরতে পারবেন না বাংলাদেশিরা। এই সিদ্ধান্তের কারণে কলকাতায় আটকে পড়েছেন সহস্রাধিক বাংলাদেশি। এ অবস্থায় ৯ মের মধ্যে যাদের ভিসা শেষ হচ্ছে, তাদেরই কেবল এনওসি দিচ্ছিল কলকাতার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন।

এই নিয়মের কারণে অনেকেই এনওসি পাচ্ছিলেন না। তাদের মধ্যে ক্যানসার আক্রান্ত, হার্টের অপারেশন হয়েছে এমন মানুষও রয়েছেন। অনেকেরই কলকাতায় থাকার মতো টাকা নেই। বাধ্য হয়ে অনেকে ফুটপাতে থাকছেন। এ অবস্থায় দেশে ফেরার দাবিতে গতকাল শুক্রবার কলকাতার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের সামনে এমন শতাধিক মানুষ বিক্ষোভ দেখান। পরে তাদের এনওসি ইস্যু করা শুরু হয়েছে।

চট্টগ্রামের বাসিন্দা সৈয়দ নূর জানান, ভেলরে ভাসকুলার অপারেশন হয়েছে। সেখানকার হাসপাতাল আর রাখতে চায়নি। টাকাও শেষ। দেশে ফিরতে গিয়ে আটকে পড়ি। কলকাতায় থাকা নিয়ে সমস্যা হচ্ছিল। ভিসা এক মাসের বেশি থাকায় এনওসি পাচ্ছিলাম না। অনেক অনুরোধের পর বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন এনওসি দিয়েছে। খুলনার বাসিন্দা মোহম্মদ ফিরোজের লিভার ক্যানসার। ভেলরে কেমো চলছিল। করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় হাসপাতাল বাংলাদেশে বাকি কেমো নিতে বলেছে। তার ভাই জানান, কলকাতায় এসে দেশে ফিরতে পারিনি। টাকা শেষ হওয়ায় বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনের সামনে ফুটপাথে রাত কাটাচ্ছিলাম। শুক্রবার রাতে এনওসি দেওয়া হয়েছে।

উপ-হাইকমিশনের কাউন্সিলর (কনস্যুলর) মোহম্মদ বশির উদ্দিন জানিয়েছেন, করোনা আক্রান্ত হয়ে আমাদের বিভাগের একাধিক কর্মী নেই। তারপরও এরই মধ্যে আমরা দেড় হাজার মানুষকে এনওসি দিয়েছি। আরো ৫৫০ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ভারতে অবস্থান করা বাংলাদেশ থেকে আসা অসুস্থ মানুষজন যাতে দ্রুত দেশে ফিরতে পারেন তার জন্য রাত পর্যন্ত আমরা কাজ করছি।

ইত্তেফাক/ইউবি

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x