ঢাকা সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬
২৪ °সে

উপজেলা পরিষদ

তৃতীয় ধাপের ভোটে নির্বাচিত হলেন যারা

তৃতীয় ধাপের ভোটে নির্বাচিত হলেন যারা
ফাইল ছবি

তৃতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনেও বেশিরভাগ জায়গায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। ১১৭টি উপজেলায় ভোট অনুষ্ঠিত হয়। বিএনপিসহ বেশিরভাগ রাজনৈতিক দল এ নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা করায় দলীয়ভাবে অনুষ্ঠিত উপজেলায় ভোটের জৌলুস হারিয়েছে। ভোটার উপস্থিতিও উল্লেখযোগ্যহারে কমেছে। বেশিরভাগ জায়গায় আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ। গত ১০ মার্চ প্রথমধাপের ৭৮টি উপজেলায় ভোট পড়ে ৪৩ দশমিক ৩২ শতাংশ হারে। দ্বিতীয় ধাপে ১৮ মার্চ ১১৬টি উপজেলায় ভোট পড়ে ৪১ দশমিক ২৫ শতাংশ হারে। তৃতীয় ধাপে ৪৫ শতাংশের মতো ভোট পড়তে পারে বলে ধারণা করছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ।

তৃতীয় ধাপে নির্বাচিতরা হলেন :গাজীপুরের কাপাসিয়ায় চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আমানত হোসেন খান (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান আসাদ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রওশন আরা সরকার। শ্রীপুরে চেয়ারম্যান এডভোকেট শামসুল আলম প্রধান (স্বতন্ত্র), কালিয়াকৈরে কামাল উদ্দিন শিকদার (স্বতন্ত্র) ও কালিগঞ্জে (মোয়াজ্জেম হোসেন পলাশ (আওয়ামী লীগ), বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়।

মানিকগঞ্জ সদর চেয়ারম্যান মো:ইস্রাফিল হোসেন (আওয়ামী লীগ) (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়),ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ তোতা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালেহা ইসলাম, সাটুরিয়ায় চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ ফটো (আওয়ামী লীগ) (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়), ভাইস চেয়ারম্যান আবুল বাশার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শিউলি আক্তার, ঘিওর অধ্যক্ষ মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান(আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান ইসতিয়াক আহম্মেদ শামীম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাহেলা, শিবালয় চেয়ারম্যান রেজাউর রহমান জানু (আওয়ামী লীগ) (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়), ভাইস চেয়ারম্যান লালন ফকির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রুনা আক্তার, দৌলতপুর নূরুল ইসলাম রাজা, ভাইস চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন আবুল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহানারা আক্তার, হরিরামপুরে চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দেওয়ান সাইদুর রহমান (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান আবুল বাশার সবুজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সাজেদা চৌধুরী এবং সিংগাইরে চেয়ারম্যান মুশফিকুর রহমান খান হান্নান(আওয়ামী লীগ, বিদ্রোহী), ভাইস চেয়ারম্যান রবিউল আলম উজ্জ্বল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার।

গোপালগঞ্জের পাঁচটি উপজেলায় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে কাউকে দলীয় মনোনয়ন দেয়া হয়নি। এই জেলায় বেশিরভাগ স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন। কোটালীপাড়ার চেয়ারম্যান বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস (স্বতন্ত্র), ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল খালেক হাওলাদার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লক্ষী রাণী সরকার। গোপালগঞ্জ সদরে চেয়ারম্যান-শেখ লুত্ফর রহমান বাচ্চু, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) নীতিশ রায় ও ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) নিরুন্নাহার, টুংগীপাড়াচেয়ারম্যান-সোলাইমান বিশ্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান -অসীম কুমার বিশ্বাস, ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা)-সফির আক্তার জোনাকি। কাশিয়ানি চেয়ারম্যান শুভ্রত ঠাকুর হিল্টু, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) খাজা নেওয়াজ, ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) সোহাগি রহমান মুক্তা, মকসেদপুর চেয়ারম্যান- মো. কবির হোসেন মিয়া।

চাঁদপুরের সাত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীদের মধ্যে চারজন প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এবং তিনজন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। চাঁদপুর সদর উপজেলায় আওয়ামী লীগের মনোনীত নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলায় অ্যাডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমান, শাহরাস্তি উপজেলায় মো. ফরিদ উল্যাহ চৌধুরী, কচুয়া উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশির পুনরায় বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। কচুয়ায়ভাইস-চেয়ারম্যান মো. মাহবুবুল আলম, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান সুলতানা খানম। নির্বাচনের আগে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় মতলব উত্তর উপজেলায় আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকার প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুছ, দক্ষিণ উপজেলায় এইচএম গিয়াস উদ্দিন ও হাজীগঞ্জ উপজেলায় গাজী মো. মাইনুদ্দিন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

সাতক্ষীরা সদর চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আসাদুজ্জামান বাবু (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান তানভির হোসেন সুজন ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান কহিনুর ইসলাম। কলারোয়ায় চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু (আওয়ামী লীগ, বিদ্রোহী), ভাইস চেয়ারম্যান কাজী আসাদুজ্জামান শাহজাদা ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান শাহনাজ নাজনীন খুকি। আশাশুনিতে চেয়ারম্যান এ.বি.এম মোস্তাকিম (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান অসিম বরন চক্রবর্তী ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মোসলেমা আক্তার মিলি। দেবহাটায় চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আব্দুল গণি (আওয়ামী লীগ) ভাইস চেয়ারম্যার হাবিবুর রহমান ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান জি.এম স্পর্শ। তালায় ঘোষ সনদ কুমার (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান সরদার মশিয়ার রহমান ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মুর্শিদা পারভীন পাপড়ি। কালিগঞ্জে চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী (আওয়ামী লীগ, বিদ্রোহী), ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান দিপালী রানী ঘোষ। শ্যামনগরে চেয়ারম্যান আতাউল হক দোলন (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান সাঈদুজ্জামান সাঈদ ও মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান খালেদা আয়ুব জলি।

বরিশালের বাবুগঞ্জে চেয়ারম্যান কাজী ইমদাদুল হক দুলাল (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল আহমেদ আজাদ, নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফারজানা ওহাব। উজিরপুরে চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সিকদার বাচ্চু (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান অপূর্ব কুমার বাইন রন্টু। বরিশাল সদর উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত সাইদুর রহমান রিন্টু (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান মধু, ভাইস চেয়ারম্যান নারী রেহেনা বেগম। বানারীপাড়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত গোলাম ফারুক (আওয়ামী লীগ)। এ ছাড়াও ভাইস চেয়ারম্যান নূরুল হুদা, ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দা তাছলিমা হোসেন ফ্লোরা।

বাকেরগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় শামসুল আলম চুন্নু (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান, নারী ভাইস চেয়ারম্যান তহমিনা বেগম মিনু। হিজলায় চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন ঢালী (স্বতন্ত্র প্রার্থী), ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন, নারী ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম। মুলাদীতে চেয়ারম্যান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তারিকুল হাসান খান মিঠু (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাইনুল আহসান সবুজ, নারী ভাইস চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন।

গৌরনদীতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত তিন জনই আওয়ামী লীগের। এরা হচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরি, ভাইস চেয়ারম্যান নুরুজ্জামান ফরহাদ মুন্সী ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান জিনিয়া আফরোজ হেলেন। আগৈলঝাড়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত তিন জনই আওয়ামী লীগের। এরা হচ্ছেন উপজেলা চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত, ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম তালুকদার, নারী ভাইস চেয়ারম্যান মলিনা রানী রায়।

ঝালকাঠি সদরে চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান পুরুষ মইন তালুকদার, ভাইস চেয়ারম্যান মহিলা ইসরাত জাহান সোনালী। রাজাপুর চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মনিরুজ্জামান (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান জিয়া হায়দার খান লিটন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা আক্তার লাইজু। কাঠালিয়া এমাদুল হক মনির (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ বদিউজ্জামান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতিমা খানম। নলছিটি সিদ্দিকুর রহমান (আওয়ামী লীগ) বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়, ভাইস চেয়ারম্যান মফিজুর রহমান শাহিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোর্শেদা লস্কর।

কক্সবাজারের পেকুয়ায় চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম(আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), ভাইস চেয়ারম্যান এম আজিজুল হক ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উন্মে কুলছুম মিনু। টেকনাফে চেয়ারম্যান নুরুল আলম (স্বতন্ত্র)।

চট্টগ্রামের পটিয়ায় চেয়ারম্যান মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী(আওয়ামী লীগ) ও ভাইস চেয়ারম্যান তিমির বরণ চৌধুরী। বোয়ালখালীতে চেয়ারম্যান নুরুল আলম (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান এসএম সেলিম ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামীম আরা বেগম। বাঁশখালীতে চেয়ারম্যান চৌধুরী মোহাম্মদ গালিব (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান এমরানুল হক ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেহেনা আকতার কাজমী। চন্দনাইশে চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান সোলায়মান আলম ফারুকী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কামেলা খানম রুপা।

লক্ষ্মীপুর জেলার ৫টি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা দুইটিতে আর স্বতন্ত্র তিনটিতে বিজয়ী হয়েছে। লক্ষ্মীপুর সদর চেয়ারম্যান এ কে এম সালাহ্উদ্দিন টিপু (আওয়ামী লীগ, বিদ্রোহী), ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট রহমতউল্যাহ বিল্বব ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদা আক্তার। রায়পুর চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মামুনুর রশিদ (আওয়ামী লীগ), ভাইস-চেয়ারম্যান মারুফ বিন জাকারিয়া ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হাজী মাজেদা বেগম। রামগঞ্জ চেয়ারম্যান মনির হোসেন চৌধুরী (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন দেওয়ান বাচ্চু ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সুরাইয়া আক্তার শিউলী। কমলনগরে চেয়ারম্যান মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ বাপ্পী (আওয়ামী লীগ, বিদ্রোহী), ভাইস চেয়ারম্যান ওমর ফারুক সাগর ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকসানা আক্তার রক্সি। রামগতি শরাফ উদ্দিন আজাদ সোহেল (স্বতন্ত্র), ভাইস চেয়ারম্যান রাহিদ হোসেন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা ফারুক।

মাদারীপুরের কালকিনিতে ভাইস-চেয়ারম্যান সাংবাদিক শহিদুল ইসলাম, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান আরিফা আক্তার বিথি।

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলায় চেয়ারম্যান : আবদুস সাদেক (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী)। শিবপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান: হারুনুর রশিদ হারুন (আওয়ামী লীগ), মনোহরদীতে চেয়ারম্যান হয়েছেন: সাইফুল ইসলাম খান বীরু (আওয়ামী লীগ), বেলাবোতে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন: শমসের জামান রিটন (আওয়ামী লীগ)।

মেহেরপুর সদরের চেয়ারম্যান: অ্যাডভোকেট ইয়ারুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান: মোমিনুল ইসলাম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান: লতিফুন্নেসা লতা। মুজিবনগরে চেয়ারম্যান: জিয়া উদ্দিন আহমেদ বিশ্বাস (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান: রফিকুল ইসলাম মোল্লা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান: আফরোজা খাতুন। গাংনী উপজেলায় চেয়ারম্যান : এম এ খালেক (আওয়ামী লীগ), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান: ফারহানা ইয়াসমিন।

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলায় চেয়ারম্যান: নাসিরুল ইসলাম খান আওলাদ (আওয়ামী লীগ), ভাইস-চেয়ারম্যান: হান্নান মোল্লা, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান: আছমা আক্তার। নিকলীতে চেয়ারম্যান: আহসান মো. রুহুল কুদ্দুস ভুঞা জনি (স্বতন্ত্র), ভাইস চেয়ারম্যান : রিয়াজুল হক আয়াজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেজিয়া আক্তার। তাড়াইলে চেয়ারম্যান: জহিরুল ইসলাম ভুঁঞা সুমন (জাতীয় পার্টি), ভাইস চেয়ারম্যান : নাজমুল হক আকন্দ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নার্গিস সুলতানা। কুলিয়ারচরে চেয়ারম্যান :ইয়াসির মিয়া (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান :সৈয়দ নূরে আলম, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান: সাঈদা খানম মুক্তা। হোসেনপুরে চেয়ারম্যান : মোহাম্মদ সোহেল (স্বতন্ত্র), ভাইস চেয়ারম্যান আশরাফ হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রৌশনারা। অষ্টগ্রামে চেয়ারম্যান :শহীদুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান মোনিক কুমার দেব, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লতিফা হক রত্না। মিঠামইন উপজেলায় চেয়ারম্যান : আছিয়া আলম (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান: মো. ইব্রাহিম মিয়া ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌসি হক রীপা। পাকুন্দিয়ায় চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম রেণু (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান মো. জুুয়েল ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামছুন্নাহার বেগম আপেল। ভৈরবের চেয়ারম্যান সায়দুল্লাহ মিয়া (আওয়ামী লীগ) ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ারা বেগম। কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান মামুন আল মাসুদ খান ( স্বতন্ত্র ), ভাইস চেয়ারম্যান মো. আব্দুস সাত্তার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা: মাছুমা আক্তার।

কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এজাজ আহমেদ মামুন (আওয়ামী লীগ), মিরপুর উপজেলায় কামারুল আরেফিন (আওয়ামী লীগ), ভেড়ামারা উপজেলায় হাজী আক্তারুজ্জামান মিঠু (আওয়ামী লীগ), কুমারখালী উপজেলায় আব্দুল মান্নান খান (আওয়ামী লীগ), খোকসা উপজেলায় আলহাজ্ত সদর উদ্দিন খান (আওয়ামী লীগ)। কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন আতাউর রহমান আতা (আওয়ামী লীগ)। মাগুরা সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান আবু নাসির বাবলু (আওয়ামী লীগ), শ্রীপুরে চেয়ারম্যান মিয়া মাহমুদুল গনি শাহীন (স্বতন্ত্র), মহম্মদপুরে আব্দুলাহেল কাফি (স্বতন্ত্র), শালিখায় চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট কামাল হোসেন ( স্বতন্ত্র )।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান রেজাউল করিম বাবু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান: জান্নাতুন নঈম মুন্নি। গোমস্তাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান হুমায়ুন রেজা (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান নুহ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা খাতুন। শিবগঞ্জে উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম (আওয়ামী লীগ। ভোলাহাট উপজেলা চেয়ারম্যান রাব্বুল হোসেন (আওয়ামী লীগ)।

রংপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নাছিমা জামান ববি (আওয়ামী লীগ) ভাইস চেয়ারম্যান মাসুদার রহমান মিলন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজলী বেগম। মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান জাকির হোসেন (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান নিরঞ্জন মোহন্ত ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামিমা আক্তার।

ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন অ্যাডভোকেট আবদুর রশিদ (আওয়ামী লীগ), শৈলকূপার চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী), হরিণাকুন্ডু চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসাইন (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), কালীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর সিদ্দিকী (আওয়ামী লীগ)।

নড়াইল সদর উপজেলায় মো. নিজাম উদ্দিন খান নিলু (আওয়ামী লীগ), ভাইস চেয়ারম্যান তোফায়েল মাহমুদ তুফান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত আরা। লোহাগড়ার চেয়ারম্যান সিকদার আব্দুল হান্নান রুনু (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), ভাইস-চেয়ারম্যান বিএম কামাল হোসেন, মহিলা-ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমীন ইতি। কালিয়া উপজেলায় বাবু কৃষ্ণপদ ঘোষ (আওয়ামী লীগ), ভাইস-চেয়ারম্যান মো. ইব্রাহিম শেখ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোহেলী পারভীন।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান আসাদুল হক বিশ্বাস (আওয়ামী লীগ)। জীবননগরে চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী), ভাইস চেয়ারম্যান আবদুস সালাম ঈশা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি। আলমডাঙ্গার চেয়ারম্যান আয়ূব হোসেন (স্বতন্ত্র)। দামুড়হুদা উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মনসুর বাবু (স্বতন্ত্র)। শেরপুরের ঝিনাইগাতি উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম এ ওয়ারেজ নাইম (আওয়ামী লীগ), মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লাইলী বেগম। শরীয়তপুরের গোসাইরহাট উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান ঢালী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী), ভাইস চেয়ারম্যান শেখ মো. আবুল খায়ের ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম।

ইত্তেফাক/আরকেজি

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ এপ্রিল, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন