বঙ্গবন্ধুর সকল খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন জিয়া: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধুর সকল খুনিদের পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন জিয়া: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী
নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে পানি সম্পদ উপমন্ত্রীর ত্রাণ বিতরণ।ছবি: ইত্তেফাক

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুর সকল খুনিদের পৃষ্টপোষকতা করেছেন। এর ধারাবাহিকতায় খালেদা জিয়াও তাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে গেছেন।

বুধবার (১২ আগস্ট) সকাল ১১টায় উপজেলার হোসেন্দী ইউনিয়নের গোয়ালগাঁ, ইসমানির চর ও গজারিয়া ইউনিয়নের নয়ানগর গ্রামের ভাঙন কবলিত এলাকাগুলো পরিদর্শন ও ভাঙন রোধ এবং ভাঙন কবলিত এলাকার ২১০মিটার জায়গায় জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা, মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলায় নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে এ কে এম এনামুল হক শামীম একথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, তারা বাংলাদেশ থেকে জাতির পিতার নাম মুছে ফেলতে চেয়েছিলো। কিন্তু বিশ্বে বাংলাদেশের নাম যতদিন থাকবে, বঙ্গবন্ধুর নামও ততদিন থাকবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ, মানচিত্র, লাল-সবুজ পতাকা ও বঙ্গবন্ধুর নাম অবিচ্ছেদ্য।

বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ বাঁধরক্ষার প্রকল্পের কথা উল্লেখ করে উপমন্ত্রী শামীম আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় নদীভাঙ্গন রক্ষায় পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সর্বাত্মকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। করোনার মধ্যেও চিহ্নিত ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাতে এপ্রিল থেকে বাঁধনির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছি। মুন্সিগঞ্জে পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রায় ৪৩৪ কোটি টাকার প্রকল্পের কাজ চলমান আছে। পর্যায়ক্রমে এই এলাকাও স্থায়ী বেড়িবাঁধ প্রকল্পের আওতায় আনা হবে।

আরও পড়ুন: শোকের মাসে ফরিদপুর আওয়ামী লীগের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

উপমন্ত্রী এ কে এম এনামূল হক শামীম ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন শেষে নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত ৩০টি পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। এসময় প্রত্যেক পরিবারকে ২০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড.মৃণাল কান্তি দাস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো: সাইফুল ইসলাম, পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আব্দুল মতিন সরকার, গজারিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা হাসান সাদী, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম ও গজারিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইকবাল হোসেন প্রমুখ।

পরিদর্শন শেষে উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজিত আলোচনা সভায় উপস্থিত হয়ে উপমন্ত্রী একে এম এনামুল হক শামীম বলেন, ‘প্রথম ধাপে ২১০মিটার জায়গায় জিও ব্যাগ ডাম্পিং করা হয়েছে।’

পর্যায়ক্রমে ভাঙন কবলিত এলাকার দেড় কিলোমিটার জায়গায় স্থায়ী বেড়িবাঁধ নির্মাণ করা হবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি। পরে জাতির জনকের স্মরণে উপজেলা সহকারী ভূমি কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে একটি অর্জুন গাছের চারা রোপণ করেন।

ইত্তেফাক/এএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত