আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে গিয়েছে: নানক

আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে গিয়েছে: নানক
আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, নির্বাচন পরাজয় ও আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে গিয়ে গণতন্ত্রকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়। এটাই তাদের রাজনীতি। মহামারী করোনার মধ্যেও জীবন-জীবিকা সমন্বয় করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি বাস্তব সম্মত বাজেট প্রকাশ করা হয়। সেখানেও বিএনপি নামক একটি দল পানি ঘোলা করার চেষ্টা করেছে।

মঙ্গলবার (৮ জুন) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে আব্দুস সালাম হলে প্রয়াত জননেতা মোহাম্মদ নাসিমের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীর স্মরণ সভায় তিনি একথা বলেন। ঢাকাস্থ সিরাজগঞ্জ সাংবাদিক সমিতি এই স্মরণ সভার আয়োজন করে।

বিএনপি নেতা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এক বক্তব্যের সমালোচনা করে জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, তিনি আবার যুদ্ধের ঘোষণা দিয়েছেন। নির্বাচন ও আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে তারা এখন নির্বাচন বয়কট করে মূলত গণতন্ত্রকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়। যারা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ায় তারা ভীতু ও অগণতান্ত্রিক রাজনীতিতে বিশ্বাসী।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে বহু ষড়যন্ত্র হয়েছে আজও হচ্ছে। তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দূরদর্শন নেতৃত্বের কারণে শুধু দেশের রাজনীতিতে নয়, বিশ্ব রাজনীতিতে তিনি আদর্শপ্রিয় নেতা পরিণত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনা বিশ্ব রাজনীতিতে একটি আদর্শ পর্যায় পরিণত হয়েছে। সারা বিশ্ব যখন মহামারি করোনায় আক্রান্ত হয়েছে, বাংলাদেশে বাদ যায়নি। তখন শেখ হাসিনার সুযোগ্য ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বে এবং বৈজ্ঞানিক চিন্তার কারণে বাংলাদেশে বহুগুণে রক্ষা পেয়েছে। আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে তছনছ হয়ে গেছে, সেখানে আল্লাহর রহমতে বাংলাদেশর পরিস্থিতি বহুগুণে স্বাভাবিক রয়েছে।

মোহাম্মদ নাসিম বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার জন্য নিবেদিত ছিলেন জানিয়ে নানক বলেন, আমাদের মুরব্বি বলতে নাসিম ভাই ছিলেন। আমাদের ভাই বলতে নাসিম ভাই ছিলেন। আমাদের নেতা বলতে একটি আস্থার ঠিকানা ছিল মোহাম্মদ নাসিম। যার সঙ্গে আমরা রাজনৈতিক আলাপ-আলোচনা করতে পারতাম সাবলীলভাবে। বন্ধু সুলভভাবে, ভাই সমতুল্য হিসাবে আমরা সকল বিষয়গুলি নির্দ্বিধায় আলোচনা করতে পারতাম। মোহাম্মদ নাসিমের রাজনৈতিক দক্ষতা, অভিজ্ঞতা ও একজন জনবান্ধব নেতার গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, আজকের রাজনৈতিক অঙ্গণে বা আওয়ামী রাজনৈতিক অঙ্গণে আসলে একজন আরেকজনের সঙ্গে দেখা হলে, রাজনৈতিক পরিস্থিতি, দল নিয়ে, সাংগঠনিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা এটি এখন খুব ছোট্ট হয়ে গেছে, এটা এখন অকল্পনীয় হয়ে গিয়েছে।

এসময় সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না, সিরাজগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল মমিন মণ্ডল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ডা. দিলীপ রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদার, জাতীয় প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ শাহেদ চৌধুরী, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ আলম খান তপু, শাহবাগ থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাজিদ রাসেল, ঢাকাস্থ সিরাজগঞ্জ সাংবাদিক সমিতির সাবেক সভাপতি শাহনেওয়াজ দুলাল, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য মানিক লাল ঘোষ প্রমুখ উপস্থিত আছেন।

ইত্তেফাক/এমএএম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
আরও
আরও
x