ঢাকা সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭
৩০ °সে

এরশাদের শরীর ভীষণ দুর্বল, ৪০ ভাগ উন্নতি: জি এম কাদের

এরশাদের শরীর ভীষণ দুর্বল, ৪০ ভাগ উন্নতি: জি এম কাদের
শুক্রবার সন্ধ্যায় সিএমএইচে এরশাদের পাশে রওশন। ছবি: ইত্তেফাক

ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা এইচএম এরশাদের রক্তে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। তার রক্তচাপ স্বাভাবিক রয়েছে। তবে সংক্রমণ ও বার্ধক্যজনিত কারণে তার শরীর বেশ দুর্বল। গত চারদিন ধরে নিজ থেকে কোন খাবার গ্রহণ করতে না পারায় কৃত্রিম উপায়ে তার শরীরে খাবার সরবরাহ করছেন চিকিৎসকরা। দুর্বলতা কমাতে নিয়মিত স্যালাইন দেওয়া হচ্ছে।

হাসপাতালে এরশাদকে দেখার পর শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে তার ছোট ভাই ও জাপার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জিএম কাদের বলেন, 'আগেরদিনের চেয়ে উনি আজ ভালো। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তার অবস্থার ৪০ ভাগ উন্নতি হয়েছে। তবে অসুস্থতা আছে। চিকিৎসা যেটা দরকার, সেটা চলছে। উনি এখনও শঙ্কামুক্ত নন। আমার সাথে ভাই একটু কথা বলেছেন, ডাক্তারদের সাথেও কথা বলেছেন। উনি কোনরকম কমিউনিকেট করতে পারছেন না, তা নয়। চিকিৎসকরা বলেছেন, সামনে আরও উন্নতি হবে। সবমিলিয়ে অবস্থা উন্নতির দিকে যাচ্ছে, অবনতির দিকে যাচ্ছে না।'

জিএম কাদের আরও বলেন, 'বয়সের কারণেও এরশাদ সাহেবের নানা জটিলতা রয়েছে। আমি আমার ভাইয়ের জন্য সবার কাছে দোয়া চাচ্ছি, যেন উনি আবারও দেশ ও জাতির জন্য কাজ করতে পারেন। আজ পবিত্র জুমারদিনে দেশের বিভিন্ন স্থানে তারর জন্য দোয়া হয়েছে।'

হাসপাতালে এরশাদের কাছে সার্বক্ষণিক থাকা তার ব্যক্তিগত স্টাফরা জানান, এরশাদের রক্তে সংক্রমণ কমানো এখনও সম্ভব হয়নি। অবশ্য সংক্রমণের মাত্রা বাড়েওনি। বেশি শারীরিক দুর্বলতার কারণে অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগ করতে সমস্যা হচ্ছে। তবে জ্বর থেমেছে। চিকিৎসকরা বেশিরভাগ সময়েই তাকে ঘুম পাড়িয়ে রাখছেন।

এর আগে শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জিএম কাদের তার উত্তরার বাসা থেকে এক ভিডিওবার্তায় বলেন, 'আজ সকালে সিএমএইচের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলেছি, তারা বলেছেন- আমার ভাইয়ের অবস্থা উন্নতির দিকে। চিকিৎসকরা এখনও ব্লাডকালচারসহ কিছু পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাননি। সেগুলো পেলে তার অবস্থার মূল্যায়ন করতে পারবেন। এরশাদ পত্নী রওশন এরশাদ ও ছেলে সাদ সন্ধ্যায় এরশাদকে দেখতে সিএমএইচে গেছেন।

আরো পড়ুন: আদা রসুনের উত্তাপ না কমতেই ডিম-আলুর বাজার লাগামহীন

এদিকে, এরশাদের 'চিকিৎসার টাকা জোগাড় হয়নি' বলে বৃহস্পতিবার সংসদে জাপা মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা যে বক্তব্য রেখেছেন, সেটি নিয়ে দলের ভেতরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য সাহিদুর রহমান টেপা শুক্রবার তার ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, 'এরশাদের চিকিৎসার জন্য লাখ লাখ নেতাকর্মী আছে। তারা সবাই টাকার পাহাড় তৈরি করে দেবে। সেই টাকা রাখার জায়গা বাংলাদেশের যে জমি আছে সেখানে ধরবে না। প্রয়োজনে সব টাকা আমি ব্যক্তিগতভাবে একাই দিতে পারি ইনশাল্লাহ।'

এরশাদের আরোগ্য কামনায় আগামী সোমবার কাকরাইলে জাপার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সদকা এবং দোয়া মাহফিলের আয়োজন করছে জাতীয় কৃষক পার্টি। সংগঠনের সভাপতি সাহিদুর রহমান টেপা জানান, সদকার গরু দিয়ে তেহারী রান্না করে দুঃস্থদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

ইত্তেফাক/এমআই

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
০১ জুন, ২০২০
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন