ঢাকা সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০১৯, ৯ বৈশাখ ১৪২৬
২৪ °সে

ফিরে দেখা

১৯ মার্চ সশস্ত্র প্রতিরোধ দিবস

১৯ মার্চ সশস্ত্র প্রতিরোধ দিবস

জয়নুল আবেদীন স্বপন

মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে ১৯৭১ সালের ১৯ মার্চ জয়দেবপুরে সংঘটিত হয় প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ যুদ্ধ। তখন ভাওয়াল রাজবাড়িতে ছিল ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের সেনানিবাস। এ রেজিমেন্টে ২৫-৩০ জন পাঞ্জাবি সৈন্য ছাড়া সবাই ছিলেন বাঙালি। এখানকার বাঙালি সৈন্যরা জানতে পারেন পাকিস্তানি বিগ্রেডিয়ার জাহানজেব এক কোম্পানি সৈন্য নিয়ে এখানে আসছে। ১৯ মার্চ দুপুরের দিকে জয়দেবপুর সেনানিবাসে জাহানজেব উপস্থিত। বাঙালি সৈন্যদের পাঞ্জাবিরা নিরস্ত্র করতে এসেছে—এ খবর দাবানলের মতো চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে চারদিকের হাজার হাজার মানুষ জয়দেবপুর শহরে সমবেত হয়। তারা সর্বদলীয় সংগ্রাম পরিষদ সশস্ত্র প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক জননেতা আ ক ম মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে জয়দেবপুর ও ঢাকার মধ্যে যোগাযোগের একমাত্র সড়কের অনেক স্থানে গাছের গুঁড়ি ফেলে ব্যারিকেড তৈরি করেন। প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন জাতীয় পরিষদ সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা কলিয়াকৈরের শামসুল হক, আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুল্লাহ ও শ্রমিক নেতা আবদুল মোতালেব। এই সশস্ত্র প্রতিরোধে জাতীয় নেতা তাজউদ্দীন আহমদেরও সমর্থন ছিল।

প্রতিরোধের জন্য স্থানীয় অনেকের হাতে ছিল লাঠিসোঁটা, তীর-ধনুক ও বল্লম। সেনানিবাসে জাহানজেবের কাছে সে খবর পৌঁছে যায়। ঢাকা ফেরার পথে জাহানজেব চান্দনার কাছে পৌঁছালে পাকবাহিনী প্রবল প্রতিরোধের মুখে পড়ে। বদমেজাজি জাহানজেব জনগণের ওপর গুলির নির্দেশ দেয়। কিন্তু বাঙালি সৈন্যরা গুলি করতে অস্বীকার করেন। অন্যদিকে পাকিস্তানি সৈন্যরা গুলিবর্ষণ শুরু করলে জনগণ আরো ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে এবং ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করতে শুরু করে। কাজী আজিম উদ্দিন ও দু’জন ব্যক্তি বন্দুক দিয়ে পাকিস্তানি সৈন্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়েন। হুরমত নামের এক সাহসী যুবক পাঞ্জাবি সৈন্যকে জাপটে ধরে তার রাইফেল ছিনিয়ে নেন। কিন্তু অন্য এক পাকিস্তানি সৈন্যের গুলিতে তিনি ঘটনাস্থলেই শহীদ হন। পাকিস্তানি সৈন্যদের নির্বিচারে গুলিবর্ষণে নিয়ামত, মনু খলিফা ও কানু মিয়াসহ ২০ জন শহীদ হন। মুক্তিযুদ্ধের প্রাক্কালে দেশের প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ ১৯ মার্চ দেশজুড়ে পেয়েছিল নতুন রূপ। সারা দেশে মানুষের মুখে তখন এক স্লোগান—‘জয়দেবপুরের পথ ধর, বাংলাদেশ স্বাধীন কর’।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
২২ এপ্রিল, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন