ঢাকা শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬
৩১ °সে


খাবারের সন্ধানে রাজাপুরের লোকালয়ে বানর!

খাবারের সন্ধানে রাজাপুরের  লোকালয়ে বানর!
রাজাপুর (ঝালকাঠি) :উপজেলার পুটিয়াখালী গ্রামের ঝালবাড়ি এলাকার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে চোখে পড়ে এমনই দৃশ্য —ইত্তেফাক

বন নিধন, মাটি কেটে পাহাড় ধ্বংস, খাবারের দুষ্প্রাপ্যতা, প্রতিকূল পরিবেশসহ নানা প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে বিলুপ্ত হচ্ছে কয়েকটি বন্যপ্রাণি। নিরাপদ আবাসস্থল বা খাবারের প্রয়োজনে বন থেকে লোকালয়ে চলে আসে এসব বন্যপ্রাণি।

সম্প্রতি ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার পুটিয়াখালী গ্রামের ঝালবাড়ি এলাকার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে চোখে পড়ে এমনই এক দৃশ্য। এ গাছ থেকে ও গাছে চষে বেড়াচ্ছে মধ্যবয়সী (মুখপোড়া হনুমান) বানরটি। চোখে-মুখে আতঙ্কের ছাপ। পিছু নিয়েছে ৫০ জন কিশোর, তরুণ এবং বৃদ্ধ বয়সি উত্সুক দর্শক। কিছুতেই স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে পারছে না বন থেকে লোকালয়ে চলে আসা এ বানরটি।

বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, নির্বিচারে বৃক্ষ নিধনের ফলে বনে খাদ্যাভাব দেখা দেওয়ায় বন্যপ্রাণিরা লোকালয়ে চলে আসছে। আর লোকালয়ে আসতে গিয়ে রেল বা সড়কপথে মারা যাচ্ছে। পুুটিয়াখালী এলাকার সোহেল মুন্সি জানান, দুদিন ধরে এ বানরটি এই এলাকার বিভিন্ন জায়গায় ছোটাছুটি করছে। তবে কারো কোনো ক্ষয়ক্ষতি করেনি। প্রত্যক্ষ দর্শক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, উত্সুক জনতার ভয়ে বানরটি এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় ছুটে চলেছে। অভুক্ত বানর খাবারের সন্ধানে হয়তো লোকালয়ে এসেছে। এ ব্যাপারে খুলনা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মদিনুল আহসান (বন্যপ্রাণি ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ) বলেন, সম্ভবত বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের যশোর জেলার কেশবপুর বন এলাকা থেকে এ বানরটি চলে এসেছে। তবে এদের প্রতি আমাদের সদয় আচরণ করা উচিত। মূলত মানুষ এগুলো দেখে আতঙ্কিত হয়ে আমাদের ফোন করেন। আমরা এসব বন্যপ্রাণি উদ্ধার সম্ভব হলে প্রয়োজনীয় সেবা দিয়ে পুনরায় বনে অবমুক্ত করি।

এই পাতার আরো খবর -
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
prayer-time
১৫ নভেম্বর, ২০১৯
আর্কাইভ
বেটা
ভার্সন