অতিথি প্রার্থীর তকমা বনাম লাঙ্গলের লড়াই

প্রকাশ : ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া

বিএনপির ঘাঁটি হিসেবে বগুড়া-৬ (সদর) আসনটি খালেদা জিয়ার আসন হিসেবে পরিচিত হওয়ায় অনেকে ভিআইপি আসন বলে থাকে। বিগত কয়েকটি সংসদ নির্বাচনে এই আসন থেকে বিএনপির চেয়ারম্যান খালেদা জিয়া প্রার্থী হয়ে বিজয়ী হয়েছেন। এবার তিনি নেই। বিএনপির প্রার্থী করা হয়েছে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে। তাই এবারের নির্বাচনে আলোচনা এসেছে অতিথি প্রার্থী বনাম লাঙ্গলের লড়াই।

বিএনপির অতিথি প্রার্থীকে নিয়ে বগুড়ায় আলোচনা সমালোচনা রয়েছে। এই সমালোচনা এবার কাজে লাগাতে উঠে পড়ে লেগেছে মহাজোটের জাতীয় পার্টির প্রার্থী নুরুল ইসলাম ওমর। নুরুল ইসলাম ওমর এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য। জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় হুইপ নুরুল ইসলাম ওমরকে নিয়ে শনিবার আওয়ামী লীগের বৈঠকে তাকে নির্বাচিত করার জন্য ৬ আসনের ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। বৈঠকে বিএনপির অতিথি প্রার্থীকে গুরুত্ব দিয়ে মানুষের ঘরে ঘরে যাওয়ার জন্য নেতা কর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। মহাজোটের পক্ষে শুক্রবার ঢাকা থেকে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের তারকাখ্যাত শিল্পীরা জনসংযোগ করে গেছেন। শহরের সাতমাথায় সেই সভায় অতিথি প্রার্থীর বিষয়টি জোড়ালোভাবে উঠে এসেছে।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী না থাকায় ধানের শীষ প্রার্থীর সমর্থকরা মনে করেন বগুড়ায় খালেদার আসনে কেউ জিততে পারবে না। শক্ত লড়াই হবে বলে মনে করেন না তারা। তবে সাধারণ ভোটাররা মনে করেন আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী করা হলে অতিথি প্রার্থীকে হারানো যেত। বগুড়ায় হাজারো ভোটারের প্রশ্ন বগুড়ায় কি লোকজন নেই? বাইরে থেকে মানুষ এনে প্রার্থী করা হচ্ছে। এর আগেও ব্যারিস্টার জমির উদ্দির সরকার খালেদা জিয়ার আসনে উপনির্বাচনে প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে কি করেছে তা সবার জানা। সদরের শহরের ভোটাররা মনে করেন শক্ত লড়াই হবে না ধানের শীষের মির্জা ফখরুলের সাথে লাঙ্গলের নুরুল ইসলাম ওমরের।

এই আসনে অন্য যারা প্রার্থী হয়েছেন তারা হলেন, ইসলামী আন্দোলনের আবু নুমান মো. মামুনুর রশিদ, কমিউনিস্ট পার্টির মো. আমিনুল ফরিদ, ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের মো. জীবন রহমান, জাকের পার্টির মোহাম্মদ ফায়সাল বিন শফিক, ন্যাপ (মোজাফফর) মো. আমিনুর রহমান (টিপু)।